কাব্যের জগৎ অলৌকিক মায়ার জগৎ

0
79

asad jaman.png1_আজ পাঠকদের জন্য প্রকাশিত হলো আসাদ জামানের কবিতা ও কবিতা-ভাবনা।

কবিতা-ভাবনা

‘কাব্যের জগৎ অলৌকিক মায়ার জগৎ।’ এই অলৌকিক মায়ার জগতে বিচরণশীল ‘বোকা’ মানুষগুলোর ভাবনা-ই বোধ হয় কবিতা ভাবনা। সেই অর্থে আমার কোনো কবিতা ভাবনা নেই। কারণ, অলৌকিক মায়ার জগতে প্রবেশের জন্য যে যোগ্যতা প্রয়োজন-সেটা আমার নেই।

ক্ষুণ্নিবৃত্তির জন্য প্রতিদিন ঘুম থেকে উঠে ‘পাখির মত সকাল’-কে ফাঁকি দিয়ে আমাকে অফিসে ছুটতে হয়। জানলার পাশে কাগজিলেবুর গাছটিতে কখন ফুল ফোটে, পরাগ মেখে কখন সে গর্ভবতী হয়, গ্রীষ্মের খরতাপেও বেহায়া কামিনী ফুলের গাছটি কখন নির্লজ্জের মত ফুল ফোটায়- তা দেখার সময় আমার নেই। খুব নিশিথে ঘরের স্থায়ী প্রতিনিধির সঙ্গে বিশেষ মুহূর্তযাপনের সময় কাগজিলেবু-কামিনীফুল-হাসনাহেনার ফিস-ফিস আলাপ আমাদের সঙ্গমনিরতবোধকে পানসে করে দিলে শরবিদ্ধ পাখির মত ছটফট করতে থাকি আমরা দু’জন। তখন-ই দু’চারটি শব্দ মস্তিষ্কের বাঁধন খুলে দেয়। ওইসব শব্দ দিয়ে যখন শব্দ শিকারে নেমে পড়ি, তখন দারুণ কিছু সৃষ্টি হয়। সে গুলোই আমার কবিতা!

কবিতা

দ্রৌপদী

তোমার শয্যায় আরো কয়েক জোরা হাত
উলঙ্গ নিঃশ্বাস! নির্বাক লেন-দেন
নিপাট আলিঙ্গন;
হয়তো তুমি এ যুগের দ্রৌপদী
পঞ্চ পাণ্ডবের আমি তৃতীয় জন!

তোমার ঝিনুক বুকে মুক্তোর খোঁজে
ধারাবাহিক খোড়া-খুড়ি
নিত্যদিন চলে;
কার জন্য খোল, কার সঙ্গে ঝোল
ফুল হয়ে ফুটি, তুমি মাধুকরী বলে!

তোমার পোড়া জমিনে লবনাক্ত জল
বীজতলা ফাঁকা-তাই একা একা
আকাশ-কুসুম দেখ;
এ নয় সত্যযুগ, ত্রেতা-দ্বাপর যুগও গেছে
কলি যুগের ‘স্বভাবী’ দ্রৌপদী, ভালবাসতে শেখ।

আগামী বর্ষায়  ভাসাব  তরী

তোমাকে সত্য জেনে, পবিত্র জেনে ঘুমাতে গেলাম
অথচ একটা বীভৎস মুখ তোমাকে টেনে নিয়ে গেল
নষ্ট হওয়ার দেশে, ভ্রষ্ট ভূগোলে!

তোমার চারদিক এত ভুলের দেওয়াল, মোহের বেড়া
ছলনার জাল, মিথ্যার মিথ-ঠিক বুঝতে পারিনি, তাই
পুরো শীতটা কাটিয়ে দিলাম ভুল উঞ্চতায়!

দেখ প্রিয়া, গ্রীস্ম এসে গেছে। চাই একটু শীতল বাতাস
বীভৎস মুখের সাথে জমা-খরচের হিসাব মিলিয়ে নাও
আগামী বর্ষায় ভাসাব তরী!!

সব কিছু মিছে মনে হয়

সব কিছু মিছে মনে হয়-যৌবন
নদী-শস্য-স্বপ্ন, সৈকত-ঝাউবন
প্রিয় নারীর মুখ, গোপন প্রণয়
নারী লোকের সঙ্গমনিরত বিনয়।

সব কিছু মিছে মনে হয়-চুম্বন
আদর-সোহাগমাখা লাজুক নয়ন
সন্ধ্যা-মাঝ রাত, ভোরের আলো
তোমার নীরবতায় সবই হারালো।

সব কিছু মিছে মনে হয়, জোছনা
সবুজ মাঠের ঘ্রাণ-ফসল কণা
যৌবতী নারী-স্রোতস্বিনী নদী
তোমার তৃষ্ণার্ত বুকে বরফ জমে যদি।

ইদানিং কবিতা

আমার সবগুলো শ্বাস
ফুস ফুস তাড়িত বাতাস
বলেছিল নত হও,

সাগর সঙ্গমে
দুপুর ঝাউবনে
গোলাপ হয়ে নিজেকে ফোটাও।।

– See more at: http://www.priyo.com/2016/May/24/217499#sthash.m2NbJs8W.dpuf

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here