ক্যামেরনের বাড়ি বদলের ছবি–বিভ্রান্তি

এনডিটিভি: ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরনের বাড়ি বদলের একটি ছবিকে ঘিরে ইন্টারনেটে বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়েছে। এতে দেখা যাচ্ছে, একটা কাগজের কার্টন হাতে তিনি কিছু একটা নিয়ে যাচ্ছেন, যার গায়ে লেখা ‘সযত্নে সামলান’। সামাজিক যোগাযোdavid-cameron0000গ মাধ্যমের অনেক ব্যবহারকারীই মনে করছেন, ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন ১০ নম্বর ডাউনিং স্ট্রিট ত্যাগের সময়ই তাঁর এই ছবিটা তোলা। তাঁকে প্রশংসায় ভাসিয়ে অনেকে এটি শেয়ারও করছেন। কিন্তু প্রকৃত সত্য হলো, ছবিটি আজ থেকে নয় বছর আগে তোলা।
ইউরোপীয় ইউনিয়নে (ইইউ) থাকা না-থাকার প্রশ্নে গত ২৩ জুন যুক্তরাজ্যের নাগরিকেরা গণভোটে অংশ নেন। এতে ব্রেক্সিট (ইইউ থেকে বেরিয়ে যাওয়ার) পক্ষের জয় নিশ্চিত হওয়ার পরই পদত্যাগের ঘোষণা দেন সদ্য সাবেক ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন। সে অনুযায়ী প্রধানমন্ত্রী হিসেবে গতকাল বুধবারই ছিল তাঁর শেষ কর্মদিবস। এই পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর পাশাপাশি তাঁকে ছাড়তে হয়েছে ১০ নম্বর ডাউনিং স্ট্রিটের সরকারি বাসভবনও। আর এখানেই তালগোল পাকিয়ে ফেলেছেন অনেকে।
২০০৭ সালে ব্রিটিশ ট্যাবলয়েড ডেইলি মেইলে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনের তথ্যমতে, ছবিটি ২০০৭ সালেরই। সে সময় যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্টে ডেভিড ক্যামেরন বিরোধীদলীয় নেতা। লন্ডনের নর্থ কেনসিংটনে বাড়ি বদলের সময় এভাবেই ক্যামেরাবন্দী হয়েছিলেন তিনি। এরও তিন বছর পর, ২০১০ সালে ক্যামেরন যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন।
আলোচ্য ছবিতে বর্তমানে ৪৯ বছর বয়সী এই রাজনীতিককে বেশ তরুণই মনে হয়। এ ছাড়া একটু ভালো করে খেয়াল করলেই বোঝা যায়, তিনি কোনো বাড়ি থেকে বের হচ্ছেন না, তিনি একটি বাড়িতে ঢুকছেন। এ সত্যটাও চাপা নেই ইন্টারনেটে। এরপরও ছবিটি নিয়ে বিভ্রান্তি আর শেয়ার থেমে নেই।
টুইটারে এক ব্যবহারকারী লিখেছেন, ‘সাম্প্রতিক সময়ে এমন দৃশ্য আমার চোখেই পড়েনি।’ অপর এক ব্যবহারকারী লেখেন, দিনের সেরা ছবি। ডেভিড ক্যামেরন নিজেই তাঁর বাড়ি বদল করছেন। তবে তৃতীয় এক ব্যবহারকারী বিভ্রান্তি কাটাতে ডেইলি মেইলে ২০০৭ সালে প্রকাশিত প্রতিবেদনটি শেয়ার করে লিখেছেন, ‘আমাদের জীবন্ত কিংবদন্তি ক্যামেরনের এই ছবিটা ২০০৭ সালের।
– প্রথম আলো থেকে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here