বাইরে না বের হয়েই জীবনে আনুন ভ্রমণের উত্তেজনা

0
69

travelখুব ইচ্ছে করছে দেশের বাইরে ঘুরে আসতে। অথচ হাতে তেমন টাকা নেই। নেই পর্যাপ্ত সময়ও। এবার তাহলে কী করবেন? ঘোরাঘুরিটা বুঝি বাতিলই হয়ে গেল। কিন্তু এই প্রতিদিনের একঘেঁয়ে জীবনটাও তো আর ভালো লাগেনা। নিজের একঘেঁয়ে জীবনে ভ্রমণের প্রশান্তি আর উত্তেজনা আনতে চান? তাও বাইরে কোথাও পা না দিয়েই? দৈনন্দিন নিয়মের ভেতরেই? চলুন তাহলে শিখে আসি প্রতিদিনের জীবনে ভ্রমণ না করেই ভ্রমণের উত্তেজনা আর নতুনত্ব আনবার কৌশল।

১. সপ্তাহের ছুটিকে প্রাধান্য দিন

সারা সপ্তাহ ছুটির দিনে এটা করব, সেটা করব- এমন নানান হিসেব কষলেও ছুটির দিন এলেই হয় ঘরের টুকিটাকি কাজ, নয়তো ঘুম- এভাবেই কেটে যায় দিনটা। কিন্তু আর না! এবারের ছুটির দিনে যতটাই ঘরে বসে থাকতে ইচ্ছে করুক না কেন, বেরিয়ে পড়ুন বাইরে। কিন্তু এবার প্রশ্ন হল বাইরে বেরিয়ে যাবেনটা কোথায়?

২. চিনে নিন নিজের শহরকে

আপনি আপনার বুকে হাত দিয়ে বলতে পারবেন যে, যে শহরের বাসিন্দা আপনি সেটাকে পুরোপুরিভাবে চেনা হয়ে গিয়েছে আপনার? একদম না। বাসার পাশের রাস্তাগুলোকেই হয়তো চেনেন না আপনি। ঠিক পাশেই কোথায় ভালো খাবার পাওয়া যায়, কোথাকার রাস্তার ধারের আখের শরবতটা না পান করলে জীবনে অনেক কিছুই মিস করবেন আপনি, কোথায় ভালো কাপড় পাওয়া যায়- এগুলোর কিছুই হয়তো জানেননা আপনি। তাই বেরিয়ে পড়ুন। আর বন্ধুদেরকে নিয়ে কিংবা একলাই চিনতে থাকুন শহরের অলিগলিকে। ব্যস্ততার কারণে না দেখা জিনিসগুলোকে দেখে নিন, চিনে নিন। কিন্তু শুধু বুঝি এটুকুই? একদম না।

৩. পাল্টে ফেলুন ঘরের পরিবেশকে

কোথায় যেতে ইচ্ছে করছে আপনার? কোন খাবারটা খেতে ইচ্ছে করছে? সেখানকার পরিবেশকে টেনে আনুন ঘরের ভেতরে। যা খেতে ইচ্ছে করছে সেটা বানিয়ে নিন কিংবা কিনুন। এরপর সেখানকার পরিবেশের সাথে মানানসই গান ছেড়ে নাচুন ইচ্ছেমতন। মোটকথা, নিজেকে দিন একেবারে ভিন্ন একটা পরিবেশ।

৪. রাস্তা বদলান

প্রতিদিন একই রাস্তা দিয়ে অফিসে যান আর ফিরে আসেন অফিস থেকে? বদলে ফেলুন রাস্তাকে। কখনো কখনো যানবাহনকেও পাল্টে নিন। একেকটা দিক দিয়ে, একেকটা যানে করে বাসায় ফিরুন। দেখবেন, একঘেয়েমি অনেকটাই কেটে গিয়েছে আপনার।

৪. অপরিচিতদের সাথে কথা বলুন

বাইরে ঘুরতে গিয়ে এই একটা ব্যাপারের মুখোমুখিতো আপনাকে হতেই হবে। তাহলে এখানেই বা সেটা বাদ পড়বে কেন? তাই অপরিচিতদের সাথে কথা বলুন। ইচ্ছে হলে ট্যুর গাইড হিসেবে কাজ করতে পারেন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের বন্ধুদের সাথে আড্ডা মারতে পারেন। এতে করে মন ভালো হবে, অপরিচিতদের সাথে পরিচয়ের সুযোগ মিলবে। আর ভ্রমণের আনন্দকেও উপভোগ করতে পারবেন পুরোপুরি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here