ম্যারাডোনার সাথে তার মেয়েদের এই ব্যবহার!

0
280

215906maradona_daughterস্পোর্টস ডেস্ক: সেই দিন এখন আর নেই। তাকে এখন আর পাত্তাই দেন না তার মেয়েরা। দূরে ঠেলে দিয়েছেন। গত শনিবার ডিয়েগো ম্যারাডোনার জন্মদিন ছিল। জন্মদিনে বিরাট পার্টিরও আয়োজন করেছিলেন মেক্সিকো বিশ্বকাপের মহানায়ক। অনেকে এসেছিলেন। আবার অনেকে আসেননি। না আসার তালিকায় ম্যারাডোনার মেয়েরাও রয়েছেন। তাঁরা বারার জন্মদিনের পার্টিতে আসেননি। যদিও তাঁদের আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন। টিকিট পাঠিয়েছিলেন। সব কিছুর পরেও বাবার জন্মদিনে আসার প্রয়োজনীয়তা দেখাননি ম্যারাডোনার কন্যারা।

মেয়েরা জন্মদিনে না আসায় বেজায় চটেছেন আর্জেন্টাইন ফুটবল ঈশ্বর। সব ক্ষোভ ম্যারাডোনা ঢেলে দিয়েছেন ফেসবুকে। ঘরের কথা সর্বসমক্ষে প্রকাশ করে দিয়েছেন।  ফেসবুকে ফলাও করে লিখেছেন, তার মেয়েরা এখন আর বাবাকে পাত্তা দেন না। তাঁকে শ্রদ্ধা করেন না। ম্যারাডোনা লিখেছেন, “আমি ছয়টা প্রথম শ্রেণির টিকিট পাঠিয়েছিলাম আমার সন্তান ও নাতিদের জন্য। তাদের মধ্যে ইয়ানা ও দাইগুইতো এসেছিল। বাকি তিনটি টিকিট ছিল দালমা, জিয়ানিন্না ও বেঞ্জামিনের জন্য। যদিও আমার জন্মদিন বেশ ভালই কেটেছে।”

এর পরেই ক্ষোভ বেরিয়ে পড়েছে ম্যারাডোনার। তিনি যে দুই মেয়ে দালমা, জিয়ান্নিনার কাছ থেকে জন্মদিনের শুভেচ্ছাবার্তা প্রত্যাশা করেছিলেন, সেটাও লিখেছেন ফেসবুকে। ম্যারাডোনা লিখেছেন, “আমি দালমা, জিয়ান্নিনা ও আমার নাতি বেঞ্জামিনের কাছ থেকে হোয়াটস অ্যাপে শুভেচ্ছা আশা করেছিলাম। কিন্তু ওরা আমাকে তা জানায়নি। আমি এর জন্য দুঃখিত নই। আমি অসন্তুষ্ট হয়েছি। নিজের বাবা বা দাদুর সঙ্গে কেউ এমন আচরণ করে না। জিয়ান্নিনা আমার কল ব্লক করে দিয়েছে। দালমার সঙ্গে আমার সমস্যা রয়েছে।”

ম্যারাডোনা যখন খেলতেন তখন এই মেয়েরাই ছিলেন তাঁর নয়নের মনি। বাবা ও মেয়ের সম্পর্ক এখন অন্য জায়গা গিয়ে পৌঁছেছে। ম্যারাডোনা অভিমান করে বলছেন, “ফুটবল ছাড়া তুমি কিছু না। এটাই প্রমাণ হয়ে গেল।” ম্যারাডোনা কিন্তু এখনও ভালোবাসেন তার মেয়েদের। সেই কথা গোপন করেননি ফেসবুকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here