ট্রাম্পের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাদের একযোগে পদত্যাগ

0
214

100445ambassador-kennedy-kalerkantho-picআন্তর্জাতিক ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে একযোগে প্রায় সব জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা পদত্যাগ করেছেন। বুধবার নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন মন্ত্রণালয়ে থাকা অবস্থাতেই পদত্যাগপত্র দাখিল করেন কর্মকর্তারা।

মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করে আসা আন্ডার সেক্রেটারি ফর ম্যানেজম্যান্ট প্যাট্রিক কেনেডির বিকল্প খুজছিল রেক্স টিলারসনের প্রশাসন যিনি হবেন টিলারসনের ডেপুটি। ওয়াশিংটন পোস্ট জানায়, নয় বছর ধরে ওই পদে কাজ করে আসা কেনেডি এই পদেই থাকবেন বলে ধারণা করা হচ্ছিল। ট্রাম্পের ক্ষমতা পালাবদলের সঙ্গেও সক্রিয়ভাবে যুক্ত ছিলেন তিনি।

বুধবার আকস্মিকভাবে প্যাট্রিক কেনেডি ও তার সঙ্গে কাজ করা আরো চার জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা পদত্যাগ করেন। কেনেডি ছাড়া অন্য চারজন হচ্ছেন অ্যাসিসট্যান্ট সেক্রেটারি অব স্টেট ফর অ্যাডমিনিস্ট্রেশন জয়েস অ্যান বার, সেক্রেটারি অব স্টেট ফর অ্যাডমিনিস্ট্রেশন ফর কনস্যুলার অ্যাফেয়ার্স মিশেল বন্ড এবং ফরেন মিশন ডিরেক্টর জেন্ট্রি ও স্মিথ। ক্যারিয়ার ডিপ্লোম্যাট হিসেবে তারা ডেমোক্রেট ও রিপাবলিকান উভয় দলের প্রশাসনের অধীনে কাজ করেছেন।

এ ছাড়াও ট্রাম্প ক্ষমতাগ্রহণের দিনে সেক্রেটারি অব স্টেট ফর ডিপ্লোমেটিক সেক্রেটারি গ্রেগরি স্টার অবসরে যান, ডিরেক্টর অব ব্যুরো অব ওভারসিজ বিল্ডিং অপারশেন লিডিয়া মুনিজ একই দিনে প্রশাসন ত্যাগ করেন। আর এতে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের প্রায় সব জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা শূন্য হয়ে গেল।

আরো অনেক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা আঞ্চলিক ব্যুরোগুলো থেকে পদত্যাগ করেছেন নির্বাচনের পরে। তবে ব্যবস্থাপনা ব্যুরোর জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাদের পদত্যাগে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জটিল আমলাতন্ত্র পরিচালনা অনেক কঠিন হয়ে যাবে।

সাবেক মার্কিন কূটনীতিবিদ ডেভিড ওয়েড বলেন, একই সময়ে এত জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তার পদত্যাগ প্রশাসনের ইতিহাসে দেখা যায়নি এবং তাদের স্থলাভিষিক্ত করা অনেক কঠিন। পররাষ্ট্র দফতরের নিরাপত্তা, ব্যবস্থাপনা, প্রশাসন ও কনস্যুলার পজিশনের বিশেষজ্ঞদের খুঁজে পাওয়া অনেক কঠিন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here