‘পদ্মা সেতু প্রকল্পে দুর্নীতির অভিযোগ ছিল বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র’

0
69

133103BANIJJYA_MONTRIঢাকা: পদ্মা সেতু দুর্নীতি মামলার নামে বাংলাদেশের বিরুদ্ধেই ষড়যন্ত্র করা হয়েছিল বলে মন্তব্য করেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। তিনি বলেছেন, ”পদ্মা সেতু প্রকল্পে দুর্নীতির অভিযোগে করা মামলা দুর্নীতি মামলা নয়, এটি ছিল বাংলাদেশের বিরুদ্ধেই একটি ষড়যন্ত্র। এ দেশের উন্নয়ন ষড়যন্ত্রকারীদের ভালো লাগছিল না। এ কারণে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করতেই অভিযোগটি আনা হয়েছিল। ”

আজ সকালে রাজধানীর কাওরান বাজারে প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে জনতা ব্যাংকের বার্ষিক সাধারণ সভা শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বাণিজ্যমন্ত্রী আরও বলেন, ”আশার কথা হলো, পদ্মা সেতু নিয়ে যে দুর্নীতি হয়নি তা পরিষ্কার করেছেন কানাডার আদালত। এখন উচিত চক্রান্তকারীদের ক্ষমা চাওয়া। ”

প্রসঙ্গত, দুর্নীতির অভিযোগে ২০১১ সালে পদ্মা সেতুর কাজ বন্ধ করে দেয় এর প্রধান অর্থায়নকারী প্রতিষ্ঠান বিশ্বব্যাংক। তাদের অনুরোধে কানাডার পুলিশ সে দেশের দুই নির্মাণ প্রতিষ্ঠান এসএনজি ও লাভালিন ইন্টারন্যাশনালের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করে। ২০১২ সালে কানাডার আদালতে এ ব্যাপারে অভিযোগ দায়ের করা হয়। ২০১৩ সালে বিশ্বব্যাংক পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজে দুর্নীতির ঘটনায় এসএনসিকে ১০ বছরের জন্য নিষিদ্ধ ঘোষণা করে এবং পদ্মা সেতুর অর্থায়ন থেকে সরে দাঁড়ায়।

পদ্মা সেতু প্রকল্পে দুর্নীতির মামলাকে ‘অনুমানভিত্তিক’ ও ‘গুজব’ বলে উল্লেখ করেছেন কানাডার একটি আদালত। একই সঙ্গে পদ্মা সেতুতে দুর্নীতির অভিযোগে ২০১৩ সাল থেকে বিশ্বব্যাংকের কোনো উন্নয়ন প্রকল্পে ১০ বছরের জন্য নিষিদ্ধ ঘোষিত কানাডীয় প্রতিষ্ঠান এসএনসি-কেও ‘নির্দোষ’ বলে রায়ে উল্লেখ করেন মামলাটির বিচারক ইয়ান নরডেইমার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here