নিউইয়র্কে গভীর শ্রদ্ধায় ভাষা শহীদদের স্মরণ

0
271

IMG_6609বর্ণমালা নিউজ: নিউইয়র্কের বাংলাদেশীরা যথাযোগ্য মর্যাদায় ভাবগম্ভীর পরিবেশে স্মরন করেছে বাংলা ভাষার জন্য উৎসর্গিত প্রাণ মহান ভাষা শহীদদের। বিভিন্ন স্থানে বেশ ক‘টি সামাজিক-সাংষ্কৃতিক সংগঠন আয়োজন মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের অনুষ্ঠানমালা। দেশের মতই একুশের প্রথম প্রহরে ২০ ফেব্রুয়ারী সোমবার মধ্যরাতে বিভিন্ন স্থানে নির্মিত অস্থায়ী শহীদ মিনারে পুষ্পমাল্য অর্পণের মধ্য দিয়ে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন বাংলাদেশীরা।

অমর একুশে পালMission 21 pic0001ন উপলক্ষে নিউইয়র্কের ম্যানহাটনে জাতিসংঘের বাংলাদেশের স্থায়ী মিশন, উডসাইডের গুলশান টেরেসে বাংলাদেশ সোসাইটি, কুইন্স প্যালেসে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই এসোসিয়েশন, জ্যাকসন হাইটসের ডাইভারসিটি প্লাজায় নব গঠিত জ্যাকসন হাইটস আওয়ামী বিজনেসে লীগের তত্বাবধানে জ্যাকসন হাইটস বাংলাদেশি বিজনেস এসোসিয়েশন ও জ্যাকসন হাইটস এলাকাবাসী এবং ম্যানহাটনে জাতিসংঘের সামনে ড্যাগ হ্যামারশোল্ড পার্কে মুক্তধারা ফাউন্ডেশন এবং বাঙালীর চেতনা মঞ্চ অুম
র একুশের ভিন্ন ভিন্ন কর্মসূচি পালন করে।

বাংলাদেশি অধ্যুষিত এলাকা কুইন্সের জ্যাকসন হাইটস, জ্যামাইকা, ব্রঙ্কসের পার্কচেস্টার, ব্রুকলিনের চার্চ-ম্যাকডোনাল্ড এলাকায় অস্থায়ী শহীদ মিনার নির্মাণ করা হয় শহীদদের স্মৃতিতে পুষ্পাঞ্জলী অর্পণের জন্য। জাতিসংঘ বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনের বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে রাত ৯টা ৩০ মিনিট থেকে একুশের প্রথম প্রহর পর্যন্ত আয়োজিত অনুষ্ঠানের সূচনা IMG_6669হয় জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেনের স্বাগত বক্তব্যের মধ্য দিয়ে। এরপর বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে স্থাপিত অস্থায়ী শহীদ মিনারের সামনে দাঁড়িয়ে ভাষা শহীদদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। দিবসটি উপলক্ষে দেয়া রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ করে শোনানো হয়। রাত সাড়ে ১০টার
পর শুরু হয় শহীদ দিবস উপলক্ষে উন্মুক্ত আলোচনা। যুক্তরাষ্ট বসবাসরত: বীর মুক্তিযোদ্ধা, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, ব্য
বসায়ী, সাংবাদিক-সাহিত্যিকসহ বিভিন্ন পেশার বাংলাদেশীরা প্রথম প্রহরে মিশনের অস্থায়ী শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে ভাষা শহীদদের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করেন। রাত ১২টা ১মিনিটে মিশনে স্থাপিত শহীদ মিনারে স্থায়ী প্রতিনিধি মাসুদ বিন মোমেনের নেতৃত্বে মিশনের কর্মকর্তা কর্মচারিবৃন্দ ফুল দিয়ে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান। তারপরই কনস্যুলেট জেনারেল অফিস, যুক্তরাষ্ট্র মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, কৃষক লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, শেখ হাসিনা মঞ্চ, শেখ রাসেল শিশু-কিশোর সংস্থা, গোপালগঞ্জ জেলা সমিতি, সোনালী এক্সচেঞ্জসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠন এবং উপস্থিত অন্যান্যরা শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।

IMG_6661নিউইয়র্কে বাংলাদেশীদের অভিভাবক সংগঠন বাংলাদেশ সোসাইটির আয়োজনে একুশের অনুষ্ঠানমালা হয় উডসাইডের গুলশান টেরেসে। রাত ১২টা ১ মিনিটে অস্থায়ী শহীদ মিনারে পুষ্পমাল্য অর্পণ করে প্রায় শতাধিক সংগঠন।
কুইন্স প্যালেসে সোমবার সন্ধ্যা থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই এসোসিয়েশনের আয়োজনে বর্ণাঢ্য সাংষ্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে পালিত হয় মহান একুশে ফেব্রুয়ারী। প্রথম প্রহরে ক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই এসোসিয়েশনের কর্মকর্তারা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে পুষ্প
মাল্য অর্পনের পর অন্যান্র বিশ্ববিদ্যালয়ের এলামনাই এসোসিয়েশনের কর্মকবর্তারা পুষ্পাঞ্জলী অর্পন করেন। এছাড়াও অসংখ্য সামাজিক-সাংষ্কৃতিক ও রাজনৈতিকি সংগঠন এবং ব্যক্তিগতভাবে অনেকেই অস্থায়ী বেদীতে শহীদদের প্রতি পুষ্পাঞ্জলী নিবেদন করেন।

মুক্তধারা ফাউন্ডেশন এবং বাঙালি চেতনা মঞ্চর প্রতিবছরের মত জাতিসংঘ সদর দপ্তরের সামনে ড্যাগ হ্যামারশোল্ড পার্কে অমর একুশের অনুষ্ঠান আয়োজন করে । প্রথম প্রহরে এখানে নির্মিত অস্থায়ী শহীদ মিনার বিভিন্ন সংগঠন পুষ্মমাল্য অপর্ণ করে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here