ক্যালিফোর্নিয়া স্টেট আওয়ামী সেচ্ছাসেবকলীগের জন্মদাতা !!

লস এজ্ঞেলেস প্রতিনিধি: ক্যালিফোর্নিয়া স্টেট আওয়ামী সেচ্ছাসেবকলীগের জন্মদাতা নিয়ে তুমুল বিতর্ক চলছে ক্যালিফোর্নিয়া স্টেট আওয়ামীলীগ ও সেচ্ছা সেবক লীগের মধ্যে,গত ৭ই মার্চ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ই মার্চের ভাষণ উপলক্ষে কিং অফ ইন্ডিয়া রেস্টুরেন্টে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়,আয়োজনটি ছিল স্টেট আওয়ামীলীগ ও স্বেচ্ছা সেবক লীগের যৌথ উদ্যোগে, স্টেট আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি মিজান শাহীনের সঞ্চালনায় প্রধান বক্তা ছিলেন আল আমিন বাবু, অনুষ্ঠানের প্রধান অথিতি ছিলেন লস এঞ্জেলেসের সর্বজন পরিচিত বীর মুক্তি যোদ্ধা প্যাটেল সাহেব, আরও ছিলেন মুক্তি যোদ্ধা মুজিবুর রহমান খোকা, মুক্তি যোদ্ধা আলাউদ্দিন, স্টেট আওয়ামীলীগের সভাপতি শফিকুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক ডাক্তার রবি আলম, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি শাহ আলম চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার মিজানুর রহমান সহ অনেক নেতা কর্মী।

অনুষ্ঠানটি সুন্দর ভাবেই চলছিল সকলের মূল্যবান আলোচনা ছিল বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণকে কেন্দ্র করে।পর্যায়ক্রমে নেতারা বক্তব্য দেওয়ার এক পর্যায়ে ক্যালিফোর্নিয়া স্টেট আওয়ামীলীগের অর্গানাইজিং সেক্রেটারি জনাব আমিন সাহেব স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতির দিকে তাক করে বললেন আপনাদের একটা সুখবর দেই, স্বেচ্ছাসেবকলীগ আমরা জন্ম দিয়েছি, এই কথা শুনার সাথে সাথে কয়েকজন স্বেচ্ছাসেবকলীগের নেতা পাল্টা জবাব দিতে চেষ্টা করে কিন্তু একজন সেচ্ছাসেবকলীগ নেতা তাদের বুঝিয়ে থামিয়ে রাখেন। উল্লেখ্য ক্যালিফোর্নিয়া সেচ্ছাসেবকলীগের কমিটি স্বয়ং বাংলাদেশ সেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোল্লা মহম্মদ আবু কাওছারের উপস্থিতে গঠিত হয়েছিল, কেন্দ্রীয় সভাপতি মোল্লা কাওছারের নিজে হাতে গড়া কমিটির জন্মদাতা কিভাবে ক্যালিফোর্নিয়া স্টেট আওয়ামীগ হয় এই নিয়ে কমিটিতে চলছে নানা গুঞ্জন, চলছে নেতাকর্মীদের মধ্যে নানান তর্ক বিতর্ক, অনেকে মনে করছেন আওয়ামীলীগের কোনো অনুষ্ঠানে ৭/৮ জনের বেশি লোক হয়না কিন্তু স্বেচ্ছাসেবক লীগকে একত্র করার পর তাদের লোক সমাগম অনেক বেশি হয়, অনেকের ধারণা সেচ্ছাসেবকলীগ আওয়ামীলীগকে অতিক্রম করে যাচ্ছে বা তাদের প্রতিদ্বন্দ্বী হয়ে যাচ্ছে? আসলে অনেকটাই নাকি তাই কমিউনিটির অনেক আওয়ামীলীগ সমর্থিত লোকজন দলীয় কোন্দলের কারণে কোথাও কোন অনুষ্ঠানে যায়না। সেচ্ছাসেবক লীগের কমিটি গঠিত হওয়ার পর সেই মুজিব সৈনিকেরা আবার একত্রে হতে শুরু করেছেন, ঐদিন ৭ই অনুষ্ঠানেও ৭৫% লোক ছিলেন সেচ্ছাসেবক লীগের নেতা কর্মী। সেচ্ছাসেবক লীগ ২৫শে মার্চে জাতীয় গণ হত্যা দিবস পালন করার প্রস্তুতি নিচ্ছে কিন্তু আওয়ামীলীগ তাতে বাধা দিচ্ছে বলে জানা যায়, সেচ্ছাসেবক লীগের নেতা জানিয়েছে আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সম্পাদক বলেছেন সেচ্ছাসেবকলীগ এককভাবে কোন অনুষ্ঠান করতে পারবেনা, আওয়ামীলীগের সাথে সেচ্ছাসেবকলীগ কাজ করবে কিন্তু তারা কোন একক অনুষ্ঠান করতে  পারবে না। এসব নিয়ে কমিনিটির সকল বাংলাদেশী রেস্টুরেন্ট ও ড্রয়িংরুমে চায়ের আড্ডায় চলছে মুখরোচক আলোচনা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here