সুইডেনের বাংলাদেশ দূতাবাসে বঙ্গবন্ধু জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশুদিবস

0
37

সুইডেন: সুইডেনের স্টকহোমে বাংলাদেশ দূতাবাসের উদ্যোগে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৭তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশুদিবস উদযাপিত হয়েছে।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশি প্রবাসী ও শিশু-কিশোর অংশগ্রহণ করে। অনুষ্ঠানসূচিতে ছিল কোরআন তিলওয়াত, বাণী পাঠ, সমবেত কণ্ঠে জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন, রাষ্ট্রদূতের স্বাগত বক্তব্য, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবন, আদর্শ ও তার ‘সোনার বাংলা’ গড়ার স্বপ্ন নিয়ে আলোচনা, শিশু-কিশোরদের অংশগ্রহণে রচনা লিখন, আবৃত্তি ও গল্পবলা প্রতিযোগিতা, পুরস্কার বিতরণ এবং নৈশভোজ।

পবিত্র কোরআন তিলওয়াতের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হয়। পরে উপস্থিত সুধী, শিশু-কিশোর ও দূতাবাসের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অংশগ্রহণে জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করা হয়। পরে রাষ্ট্রদূত এবং দূতাবাসের কর্মকর্তারা রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ও পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বাণী পাঠ করেন। কর্মসূচির উল্লেখযোগ্য দিক ছিল শিশু-কিশোরদের অংশগ্রহণে ‘বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন, বাংলাদেশের খুশির দিন’ বিষয়ের ওপর রচনা প্রতিযোগিতা, কবিতা আবৃতি ও গল্প বলা প্রতিযোগিতায় শিশু-কিশোদের অংশগ্রহণে দূতাবাস প্রাঙ্গনে এক আনন্দঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয়।

রাষ্ট্রদূত মো. গোলাম সারোয়ার স্বাগত বক্তব্যে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সংগ্রামী জীবন ও বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে তার অবিস্মরণীয় অবদানের কথা উল্লেখ করেন। তিনি তার বক্তব্যে দেশের পরিমণ্ডল ছাড়িয়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বঙ্গবন্ধুর বিরল নেতৃত্বসুলভ উপস্থিতির বিষয়টি তুলে ধরেন রাষ্ট্রদূত। বঙ্গবন্ধুর অতুলনীয় দেশপ্রেম ও শিশুদেরপ্রতি গভীর মমত্ববোধের দৃষ্টান্ত অনুসরণের জন্য এবং তার সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্নকে বাস্তবে রুপ দেয়ার জন্য তিনি সকলকে সম্মিলিতভাবে কাজ করার আহ্বান জানান। প্রবাসীদের তিনি অধিকহারে ও যথাযথ উপায়ে রেমিট্যান্স প্রেরণে উদ্বুদ্ধ করেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন স্টকহোম-এ সফররত বহিরাগমণ ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. মাসুদ রেজওয়ান। বিশেষ অতিথি বক্তব্যে তিনি বঙ্গবন্ধুর অবিস্মরণীয় নেতৃত্বের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে পাসপোর্ট পরিসেবার মান উন্নয়নের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন।

সার্বিকভাবে অনুষ্ঠান পরিচালনা ও উপস্থাপনা করেন দূতাবাসের কাউন্সিলর ও চ্যান্সারি প্রধান শেখ মো. শাহরিয়ার মোশাররফ।

রাষ্ট্রদূত অনুষ্ঠানে উপস্থিত সকল শিশু-কিশোরদের শুভেচ্ছা উপহার প্রদান করেন। পরিশেষে নৈশ ভোজ পরিবেশনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here