উত্তর কোরিয়ার দাবি ‘বড় ধরনের পারমাণবিক বোমা বহনে সক্ষম’ ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা

0
127

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: বড় ধরনের ভারি পারমাণবিক বোমা বহনে সক্ষম একটি মধ্য থেকে দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করা হয়েছে বলে দাবি করেছে উত্তর কোরিয়া। গতকাল রবিবার সকালে দেশটির নেতা কিম জং উনের তত্ত্বাবধানে পিয়ংগান প্রদেশের কুসং শহর থেকে নিক্ষেপ করে ক্ষেপণাস্ত্রটির পরীক্ষা চালানো হয়।

উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা কেসিএনএ আজ সোমবার নতুনভাবে তৈরি ক্ষেপণাস্ত্রটির পরীক্ষা চালানোর এ দাবি করেছে। ক্ষেপণাস্ত্রটি রাশিয়ার পূর্ব সীমান্তের কাছে সাগরে গিয়ে পড়ে বলেও দাবি করে রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা।

কেসিএনএ জানায়, প্রতিবেশী দেশগুলোর নিরাপত্তায় যেন বিঘ্ন না ঘটে ক্ষেপণাস্ত্রটি উৎক্ষেপণের সময় তার প্রতি লক্ষ্য রাখা হয়েছিল, তাই ক্ষেপণাস্ত্রটি সবচেয়ে বড় অ্যাঙ্গেলে নিক্ষেপ করা হয়েছে; এটি ওপরের দিকে দুই হাজার ১১১ দশমিক ৫ কিলোমিটার পর্যন্ত উঠে ৭৮৭ কিলোমিটার দূরে গিয়ে পড়েছে।

জাপানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়, ক্ষেপণাস্ত্রটি এক হাজার ২৪৫ মাইল উচ্চতায় পৌঁছে যায়। পরে ৭০০ কিলোমিটার অতিক্রম করে সেটি জাপান সাগরে গিয়ে পড়ে।

এদিকে, ক্ষেপণাস্ত্রটি ছোড়ার পরপরই জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠক ডেকেছে জাতিসংঘ ও জাপান। আগামী মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত হবে জরুরি ওই বৈঠক। যুক্তরাষ্ট্রের প্রশান্ত মহাসাগরীয় কমান্ডের পক্ষ থেকে জানানো হয়, ক্ষেপণাস্ত্রটির ধরন খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তবে এটি আন্তমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্র (আইসিবিএম) নয়। আইসিবিএম কোরিয়া থেকে যুক্তরাষ্ট্রে আঘাত হানতে সক্ষম।

ক্ষেপণাস্ত্রটি ছোড়ার পর জাপানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়, ক্ষেপণাস্ত্রটি এক হাজার ২৪৫ মাইল উচ্চতায় পৌঁছে যায়। পরে ৭০০ কিলোমিটার অতিক্রম করে সেটি জাপান সাগরে গিয়ে পড়ে।

বিশেষজ্ঞরা জানান, রবিবার পরীক্ষা করা ক্ষেপণাস্ত্রটি যে উচ্চতায় পৌঁছেছিল তাতে বোঝা যায় এটি উঁচুতেই ছোড়া হয়েছিল, এতে এর গমনপথ সংক্ষিপ্ত হয়। কিন্তু প্রচলিত গমনপথ অনুসরণ করে ক্ষেপণাস্ত্রটি ছোড়া হলে এটি অন্তত চার হাজার কিলোমিটার পথ অতিক্রম করতো।

দক্ষিণ কোরিয়ার নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে ইন বুধবার দায়িত্ব গ্রহণের পর উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে আলোচনা শুরু করার প্রতিশ্রুতি দেন। তার কয়েকদিনের মধ্যেই উত্তর কোরিয়া নতুন আরেকটি ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষামূলক উৎক্ষেপণ করল। দক্ষিণ কোরিয়ার জন্য এ ঘটনা একটি বার্তা বলে ওয়াশিংটন মন্তব্য করেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here