সম্মেলন ও পুরস্কার বিতড়নের অনুষ্ঠানের পেছনেও অনেক কিছু হয় : শাওন

বর্ণমালা নিউজ: লোকসঙ্গীতের প্রসারের মধ্যে দিয়ে প্রবাসে বেড়ে উঠা নতুন প্রজন্মের হৃদয়ে বাংলা লোকজসঙ্গীতের সুর গেঁথে দেবার আহ্বান জানান মেহের আফরোজ শাওন। নিউইয়র্কে ২৭ আগস্ট অনুষ্ঠেয় আন্তর্জাতিক লোক সঙ্গীত সম্মেলন নিয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন বাংলাদেশের জননন্দিত সাহিত্যিক প্রয়াত হুমায়ূন আহমেদের স্ত্রী অভিনেত্রী ও কণ্ঠশিল্পী মেহের আফরোজ শাওন।

গত ১৯ জুন সন্ধ্যায় উডসাইডের রুমা‘স কিচেনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলন ও ইফতার মাহফিলে যোগ দিয়ে শাওন আরো বলেন, আন্তর্জাতিক লোক সঙ্গীত সম্মেলন বিগত একদশক ধরে অনুষ্ঠিত হলেও এই প্রথম তিনি এর সাথে সম্পৃক্ত হবার সুযোগ পেয়ে গর্বিত। শাওন আরো বলেন, আমেরিকায় অনেক সম্মেলন ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান হয়, তাতে নাচ-গানও হয়। এসবরে জন্য আবার দেশের থেকে শিল্পী আনতে ভিসার আবেদন করা হয়, যাদের ভিসা হয় তারা আবার পুরস্কৃত হন অনুষ্ঠানে। এসব অনুষ্ঠানের পেছনেও অনেক কিছু হয়। তবে আন্তর্জাতিক লোক সঙ্গীত সম্মেলন নিয়ে এমন কোন অভিযোগ উঠেনি।

এবারের দিনব্যাপী অনুষ্ঠেয় আন্তর্জাতিক লোক সঙ্গীত সম্মেলনকে বাংলাদেশের জননন্দিত সাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদকে উৎসর্গ করা হয়েছে। হুমায়ূন আহমেদের সাহিত্যে বাংলার প্রান্তিক মানুষ ও লোকজসত্বা ফুঁটে উঠে তার গান ও কবিতায়। আর সেই লোকজসত্বার অনুসন্ধানের মানুষটির প্রতি শ্রদ্ধা জানাতেই তাকে উৎসর্গ করা হয়েছে এবারের আসরটি।

প্রবাসের পরিচিত মুখ কবি এবিএম সালেহ উদ্দীনের সঞ্চালনে সংবাদ সম্মেলন পর্বটি সভাপতিত্ব করেন সম্মেলন উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক কমিউনিটি এক্টিভিষ্ট ফার্মাসিস্ট এম আমিনউল্লাহ। এ সময়ে মঞ্চে আরও উপবিষ্ট ছিলেন কো-কনভেনার ফাহাদ সোলায়মান, বাংলাদেশ থেকে আগত সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও রাজনীতিবিদ অনন্যা হোসেন মৌসুমী, নিউইয়র্কের হুমায়ূন ফাউন্ডেশনের সভাপতি লেখিকা মুনিয়া মাহমুদ, চীফ কো-অডিনেটর এ কে এম নুরুল হক, কো-অ-অডিনেটর হাজী আব্দুর রহমান, সদস্য সচিব নূর ইসলাম বর্ষন।

সংবাদ সম্মেলনে আন্তর্জাতিক লোক সঙ্গীত সম্মেলন উদযাপন কমিটির পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করে কমিটির কর্মকর্তাদের পরিচয় করিয়ে দেন আহ্বায়ক এম আমিনউল্লাহ। সম্মেলনের প্রস্তুতির অগ্রগতি নিয়ে আলোচনা করেন জয়েন্ট কনভেনর আবু তালেব চৌধুরী চান্দু, ডাঃ নার্গিস রহমান, আবু তাহের, সুজাতা সরকার, মনিকা চৌধুরী, কালচারার চেয়ারম্যান ফটিক চৌধুরী, নীলা জেরিন, প্রচার কমিটির চেয়ারম্যান বাবলী হক, মেলা কিমিটর জয়েন্ট চেয়ারম্যান রাহিমুল হুদা প্রধান, রোকসানা বেগম, হেলেন আহমেদ, আপ্যায়ন চেয়ারম্যান তোফায়েল আহম্মেদ চৌধুরী, উপদেষ্টা শাহ নেওয়াজ, একেএম এ রশিদ, আনোয়ার খন্দকার। এরপর সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন সম্মেলনের কর্মকর্তাবৃন্দ।

সভাপতির বক্তব্যে এম আমিন উল্লাহ বলেন, বরীন্দ্রনাথ, নজরুল বাংলা সাহিত্য, সংস্কৃতির জন্য যে দেশীয় এবং আন্তর্জাতিক সম্মান পেয়েছেন তেমনই হুমায়ূন আহমেদও এই সম্মান পাওয়ার যোগ্য। কারণ হুমায়ূন আহমেদের সাহিত্য কর্ম শহর বন্দর গ্রাম গঞ্জের মানুষের মাঝে আলো ছড়িয়েছে। মানুষ উৎসাহিত হয়েছে বই পড়তে। তার লেখায় সমাজ পরিবর্তনের উন্মেষ ঘটেছে। তিনি সৃষ্টির মহা বিপ্লব সাধিত করেছেন সাহিত্য কর্মের মাধ্যমে। তাই হুমায়ূন আহমেদকে জাতীয় সম্মানে ভূষিত করার জন্য আন্তর্জাতিক লোক সঙ্গীত সম্মেলন কমিটির পক্ষ থেকে জোর দাবী জানানো হচ্ছে। সংবাদ সম্মেলন শেষে ইফতার শুরুর প্রারম্ভে প্রয়াত হুমায়ূন আহমেদ এর বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন এম আমিনউল্লাহ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here