অতিরিক্ত ডায়েট করতে গিয়ে মারা গেলেন তরুণী

0
102

বিনোদন ডেস্ক: বডিবিল্ডিংয়ে নাম করতে চেয়েছিলেন। স্বপ্নপূরণে শুরু করেছিলেন মাত্রাতিরিক্ত ডায়েট, জিম, সাপ্লিমেন্টারি নেওয়া। আর তাই কাল হলো। মাত্র ২৫ বছর বয়সে মারা গেলেন পশ্চিম অস্ট্রেলিয়ার বডিবিল্ডার মেগান হেফোর্ড। সম্প্রতি এই তথ্য সামনে এসেছে। বাড়িতেই নাকি অজ্ঞান হয়ে পড়েছিলেন মেগান। এক রিয়েল এস্টেট এজেন্ট অ্যাপার্টমেন্টে এসে তাঁকে ওই অবস্থায় দেখেন। ওই অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে মৃত্যু হয় তাঁর।

পরে জানা যায় তরুণীর মৃত্যুর প্রকৃত কারণ। মেডিক্যাল রিপোর্টে বলা, বংশগত একটি অসুখে আক্রান্ত ছিলেন মেগান।

তিনি নিজে জানতেন না সেকথা। এই অসুখের ফলে, শরীরে প্রোটিনগুলোর যেভাবে ব্যবহার হওয়ার কথা, তা বাধাপ্রাপ্ত হচ্ছিল। সমস্যা শুরু সেখান থেকেই। আবার বডি বিল্ডিংয়ের জন্য প্রোটিনযুক্ত সাপ্লিমেন্টারি নিতেন মেগান। মৃত্যুর অন্যতম কারণ হিসেবে এই সাপ্লিমেন্টারির উল্লেখ করা হয়েছে। প্রসঙ্গত, ডিমের সাদা অংশকেও বডিবিল্ডাররা  বেশি পরিমাণে খেয়ে থাকেন। এখানেও প্রচুর প্রোটিন থাকে।

মেয়ের করুণ পরিণতিতে স্তম্ভিত পরিবার। মেগানের মা মিচেল হোয়াইট জানিয়েছেন, সবকিছু ঠিকঠাক ছিল। কিন্তু, আচমকা মৃত্যু হলো তাঁর মেয়ের। সামনে মাসে বডিবিল্ডিংয়ের কম্পিটিশন ছিল। সেকারণে, জিমে যাওয়া বাড়িয়েছিল সে। প্রোটিন জাতীয় খাবারের পাশাপাশি সাপ্লিমেন্টারি নিত বেশি করে। মৃত্যুর কয়েকদিন আগে শরীর ভালো যাচ্ছিল না মেগানের। ও ক্লান্ত হয়ে পড়ত। অত করে জিমে যেতে বা ডায়েট করতে বারণ করেছিলেন। কিন্তু, শোনেনি মেগান।

মেগানের মৃত্যু সাপ্লিমেন্টারি ব্যবহারকারীদের চোখ খুলে দেবে বলে বিশ্বাস মিচেলের। মেয়ের মৃত্যু মেনে নেওয়া কঠিন। তাও এখন নিজেকে সান্ত্বনা দিয়ে বলেন, মাত্র ২৫ বছর বয়সে অনেককিছু করতে পেরেছে মেগান। সাপ্লিমেন্টারি ব্যবহার না করলে তার হয়তো এই পরিণতি হতো না।

মেগানের মৃত্যুর জন্য সাপ্লিমেন্টারি কম্পানিগুলির দিকে আঙুল তুলেছেন চিকিৎসক ওমর খুরশিদ। তাঁর মতে, টাকা কামানোর জন্য বাজারে নানা ধরনের সাপ্লিমেন্টারি সাপ্লাই করছে কম্পানিগুলি। তার গুণাবলি সম্পর্কে মানুষ ওয়াকিবহাল নয়। কিন্তু, কিনে নিয়ে ব্যবহার করছে। ক্ষতি হচ্ছে স্বাস্থ্যের। লাভবান হচ্ছে কম্পানিগুলি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here