জর্জিয়া যুবলীগের জাতীয় শোক দিবস পালন

রুমি কবির, আটলান্টা থেকে:  গত ১৫ আগস্ট মঙ্গলবার ছিল জাতীয় শোক দিবস। ১৯৭৫ সালের এই দিনে একদল দেশদ্রোহী সেনা অফিসারের নৃশংস হামলায় শাহাদত বরণ করেন হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর পরিবারবর্গের সদস্যগণ। শুধুমাত্র দুই কন্যা শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা সেসময় দেশের বাইরে থাকায় বেঁচে যান।

বঙ্গবন্ধুর ৪২তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবসের এই দিনটিতে যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ পূর্বাঞ্চলীয় প্রধান শহর আটলান্টায় জর্জিয়া যুবলীগের উদযোগে দলের নিজস্ব কার্যালয়ে গভীর শ্রদ্ধা ও ভাব গাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে এক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

জর্জিয়া স্টেট যুবলীগ সভাপতি মোশাররফ হোসেনের সভাপতিত্বে, সাধারণ সম্পাদক হাসান চৌধুরী সুহেলের পরিচালনায় এবং যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তোফায়েল আহম্মেদ তপুর উপস্থাপনায় ওই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য প্রদান করেন যথাক্রমে জর্জিয়া স্টেট আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদ রহমান ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও মানচিত্র ফাউন্ডেশনের সভাপতি এ এইচ রাসেল।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথি ছাড়াও আলোচনায়অংশ নেন আমন্ত্রিত অতিথি জর্জিয়া আওয়ামীলীগ নেতা ফরহাদ আহমেদ ও সাংস্কৃতিক সংগঠক শামীমুল ইসলাম শামীম।

অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তিলাওয়াত করেন সংগঠনের যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক পাপ্পু খান ও পবিত্র গীতা থেকে পাঠ করেন সংগঠনের সাংগঠনিক সম্পাদক অভিষেক শ্যাম। এরপর জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, তার পরিবারবর্গ এবং ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

একটি বিশেষ পর্বে ভাবগম্ভীর ও আবেগঘন পরিবেশে অতিথিগণকে সঙ্গে নিয়ে সকলে মিলে জাতির জনকের প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পন করেন।

আলোচনা সভায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবনের উপর আলোকপাত অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন একে একে জর্জিয়া স্টেট যুবলীগের সাত জন সহসভাপতি যথাক্রমে সাদমান সুমন, সোহরাব হোসেন, মাহফুজ হক, মারুফ ভূঁইয়া, মোঃ সিরাজুল ইসলাম সিজু, শামীম আহমেদ ও সাজু মোহাম্মদ, সাধারণ সম্পাদক হাসান চৌধুরী সুহেল, দুই যুগ্ম সাধারন সম্পাদক যথাক্রমে সাজ্জাদ হাসান পায়েল ও আরিফ হোসেন, জর্জিয়া যুবলীগ নেতা মাহবুব আলম সাগর, আকিদুল মিয়া রানা, গোলাম তারেক সেতু, রানা রহমান, আহমেদ সোহেল, তামিম মতিন প্রমুখ। বক্তাগণ শোককে শক্তিতে পরিনত করে শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার মাধ্যমে আধুনিক ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার অঙ্গীকার করেন।

শেষে সভাপতি মোশাররফ হোসেনের সমাপনী বক্তব্যের মধ্য দিয়ে আলোচনা পর্বের সমাপ্তি ঘটে।

দ্বিতীয় পর্বে সহসভাপতি মোঃ সিরাজুল ইসলাম সিজুর পরিচালনায় দোয়া মাহফিলে জাতির জনক ও তার পরিবার বর্গের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, তার বোন শেখ রেহানা ও তার সুযোগ্য পুত্র সজীব ওয়াজেদ জয়সহ বঙ্গবন্ধু পরিবারের সকল সদস্যের সুস্থতা ও দীর্ঘায়ু কামনা করা হয়। এছাড়া বাংলাদেশের বর্তমান সময়ের বন্যা কবলিত মানুষদের জন্য মহান আল্লাহর দরবারে দোয়া প্রার্থনা করা হয় ও সকলকে যার যার মতো অসহায় মানবেতর জীবন যাপনের মানুষগুলোর জন্যে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেয়ার আহবান জানানো হয়।

শেষে রাতের খাবার পরিবেশনের মাধ্যমে শোক দিবসের আয়োজনটির সমাপ্তি হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here