আদালতকে ইস্যু করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত বিএনপি : ওবায়দুল কাদের

0
50

ঢাকা: আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আগামী নির্বাচনে বিএনপির বলার মতো কিছু না থাকায় আদালতকে তারা ইস্যু করার ষড়যন্ত্র করছে।

তিনি বলেন, বিএনপি জানে জনগণ তাদের ভোট দেবে না। সে কারণে তারা বিভিন্ন ইস্যু খুঁজছে। জনগণের সাথে যে ইস্যুর সম্পর্ক নেই বিএনপি সেটা নিয়ে মাথা ঘামায়, যদি এর থেকে কোনো ফায়দা নেয়া যায়।

কাদের আরো বলেন, আর তাই এখন তাদের সবচেয়ে বড় ইস্যু হচ্ছে আদালতের ইস্যু। আদালতের ইস্যু নিয়ে তারা রঙিন স্বপ্ন দেখছে। তাদের এ রঙিন স্বপ্ন চুপসে যাবে।

ওবায়দুল কাদের মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি সংলগ্ন বাংলা একাডেমির আব্দুল করিম সাহিত্য বিশারদ মিলনায়তনে ছাত্রলীগের উদ্যোগে একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলায় নিহতদের স্মরণে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।

ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এইচ এম বদিউজ্জামান সোহাগ, ঢাবি ছাত্রলীগের সভাপতি আবিদ আল হাসান।

সভা পরিচালনা করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি আন্দোলনের কথা বলে।

কানাডার আদালতে তারা সন্ত্রাসী দল হিসেবে প্রমাণিত হয়েছে। তারা জানে, তাদের অপকর্মের জন্য এদেশের জনগণ তাদের ভোট দেবে না। তাই তারা ক্ষমতায় আসার জন্য ষড়যন্ত্রের চোরাগলি খুঁজছে।

তিনি বলেন, ষোড়শ সংশোধনী নিয়ে ব্যারিস্টার মওদুদ যেভাবে কথা বলেন মনে হয় যেন তিনিই প্রধান বিচারপতি। কাদের বলেন, এদেশ বাংলাদেশই থাকবে। কখনই আপনাদের স্বপ্নের পাকিস্তানে পরিণত হবে না। আপনাদের স্বপ্নের খোয়াব নিয়ে যতই লাফালাফি করুন না কেন বাংলাদেশ বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবেই থাকবে।

তিনি আরো বলেন, আগস্ট মাস বিএনপির জন্য গাত্রদাহের মাস। এই মাসে তারা নানা অপকর্ম করে। তারা ভূয়া জন্মদিনের কেক কাটে। তারা আমাদের অনুভূতিতে আঘাত করে, আবেগ নিয়ে উপহাস করে। তাদের সাথে আমরা সংলাপ করব? জিয়াউর রহমান ৭৫-এর ১৫ আগস্টের হত্যাকারীদের পুরস্কৃত করেছে, বিদেশের বিভিন্ন দূতাবাসে চাকরি দিয়েছে। যারা অপরাধ করে আর যারা এর প্রশ্রয় দেয় উভয়েই কি সমান অপরাধী নয়? এই প্রশ্রয়কারীরাই শেখ হাসিনাকে গ্রেনেড হামলার জন্য টার্গেট করেছিল। তখনকার বিএনপি-জামায়াত সরকার এই হামলাকারীদের পালিয়ে যেতে সহায়তা করেছিল। হামলার তদন্ত করতে দেয়নি। এর সকল প্রমাণ তারা মুছে দিয়েছিল। তাতে কী প্রমাণিত হয়?

ছাত্রলীগকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, তোমাদেরকে মানসিক, সাংগঠনিক এবং রাজনৈতিকভাবে প্রস্তুত থাকতে হবে। দেশের মানুষকে নিয়ে ষড়যন্ত্রের বিরূদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here