বিশ্ব সিলেট সম্মেলন নিউইয়র্কে ১৬ ও ১৭ সেপ্টেম্বর

বর্ণমালা ডেস্ক: ১৬ ও ১৭ সেপ্টেম্বর বিশ্বের রাজধানী নিউইয়র্কে সারা বিশ্বে ছড়িয়ে থাকা সিলেটবাসীর মিলনমেলা বসবে নিউইয়র্কে। বিশ্ব সিলেট সম্মেলন নামে এই মহা মিলনমেলার আরেয়াজক জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশন অব আমেরিকা ।

সম্এমেলন আয়োজনের প্রস্তুতি এগিয়ে চলছে । আয়োজক সংগঠন জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশন অব আমেরিকার সভাপতি বদরুল হাসান খান এবং সাধারণ সম্পাদক জেড চৌধুরী জুয়েল জানিয়েছেন, সম্মেলনকে সফল করে তুলার জন্য ড. জিয়াউদ্দিন আহমেদকে আহ্বায়ক করে কমিটি গঠন করা হয়েছে। বিশ্বের সর্বত্র ছড়িয়ে থাকা সিলেটিদের নিউইয়র্কে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে অংশগ্রহণ করার অনুরোধ জানিয়েছেন জুয়েল। তিনি বলেন, দেশ, সময় ও জাতি নির্বিশেষে সিলেটের মাটি ও মানুষের মাঝে এক অকৃত্রিম হৃদয়ের যোগযোগ একটি অনন্য বিস্ময়। আঞ্চলিক ভাষা, প্রাকৃতিক সৌন্দর্য বা সংস্কৃতির অবদান পর্যালোচনা করলে ও তার হিসেব মেলে না। ইতিহাসের নাড়ির গভীরে কোথাও এর প্রভাব আছে। তবে এটা সুস্পষ্ট যে বিশ্বের যেখানেই সিলেটের মানুষ ছড়িয়ে আছেন তাদের এই আত্মার সম্পর্ক কালের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ। সকল আঞ্চলিকতার ঊর্ধ্বে থেকেও নিজ অঞ্চলের জন্য এই অনুপম ভালোবাসা সর্বদা হয় অনুরণিত।

সম্মেলনের আহ্বায়ক ডা. জিয়াউদ্দিন আহমেদ জানান, ভারতের দক্ষিণ কলকাতা সিলেটী অ্যাসোসিয়েশন সিলেটী সম্মেলন শুরু করে অভূতপূর্ব এক সাড়া জাগিয়েছে। ঢাকার জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশন উদ্যোতে এ বছর বাংলাদেশের ঢাকায় ও সিলেটেও তার পুনরাবৃত্তি ঘটেছে। তাই আজ মনে হচ্ছে এই ধারাবাহিকতাকে সম্মান জানিয়ে সিলেট থেকে অনেক দূরে থেকেও বিভিন্ন দেশে যারা সিলেটী ঐতিহ্য ও ভালোবাসাকে জাগিয়ে রেখেছেন তাদের জন্য সবচেয়ে প্রয়োজন একটা মিলন মেলার শুভ আয়োজন। ডা. জিয়াউদ্দিন আহমেদ আরো বলেন, বাবতেও অবাক লাগে যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য সহ বিশ্বব্যাপী বাংলাদেশি বা ভারতীয় প্রজন্ম এবং প্রজন্মের যারা কোনো দিন সিলেটে যায়নি তারা অনর্গল সিলেটেই বলতে পারে। তারা সিলেটী ঐতিহ্য ও ভালোবাসায় গর্ব বোধ করে। নিউইয়র্কে আমেরিকার জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশন বিশ্ব সিলেট সম্মেলন এর আয়োজন করে বিশ্বব্যাপী একটা যোগসূত্র নির্মাণ করার অভিপ্রায়ে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। শুধু সব দেশের সিলেটী মানুষের আন্তরিক অংশগ্রহণে হবে এর পরিপূর্ণ সার্থকতা।

সম্মেলন আয়োজনের বিভিন্ন বিষয়ে জানতে চাইলে ড. জিয়াউদ্দিন বলেন, বিশ্ব সিরেটবাসীর মিলন মেলা, আত্মকথন, পরিচিতি, শুভেচ্ছা বিনিময়, প্রজন্মের অনুভূতি, শিকড়ের সন্ধানে, সিলেটী খাবার ও অন্যান্য ঐতিহ্যের এবং সংস্কৃতির অবগাহনে ভরপুর থাকবে পুরো দুদিনের অনুষ্ঠানমালা। এছাড়াও এই বিশ্ব সিলেট সম্মেলনের উদ্দ্যেশের মধ্যে থাকবে প্রস্তাবিত বিভিন্ন প্রকল্প বাস্তবায়নের উদ্যোগ। যাতে সিলেট অঞ্চলের ইতিহাস, ঐতিহ্য, ভাষা, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক বিশেষত্বের সংরক্ষণ এবং বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে বসবাসরত সিলেটবাসীদের মধ্যে সম্প্রীতি ও সৌহার্দ্য বৃদ্ধির জন্য পরিকল্পনা গ্রহণ করা। এ মিলন মেলা করার মাধ্যমে সংকীর্ণ আঞ্চলিকতার মনোভাব এর বাইরে থেকে বিশ্বমানবতার দীক্ষায় অন্যান্য দেশ ও অঞ্চলের সঙ্গে সৌহার্দ্য ও সম্প্রীতি বৃদ্ধির প্রক্রিয়াতে অংশ গ্রহণ করার জন্য অনুপ্রাণিত করা হবে আরেকটি বিশেষ অভিযাত্রা।

ব্র্যাক এর প্রতিষ্ঠাতা বিশ্ববরেণ্য সিলেটের প্রিয় সন্তান স্যার ফজলে হাসান আবেদ প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকতে সম্মতি জানিয়েছেন বলে জানালেন ড. জিয়াউদ্দিন। সম্মেলনের যাবতীয় যোগাযোগের জন্য ইমেইলbishshawsylhetshommelon@gmail. com এ যোগাযোগ করার জন্য  অনুরোধ জানানো হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here