মালয়েশিয়ায় ঈদুল আযহা পালিত

0
42

মালয়েশিয়া থেকে: যথাযোগ্য ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্যদিয়ে মধ্যপ্রাচ্যের সঙ্গে তাল মিলিয়ে মালয়েশিয়াতেও ১ সেপ্টেম্বর শুক্রবার পালিত হয়েছে ঈদুল আজহা। দেশটিতে সবচেয়ে বড় ঈদ জামাত সকাল সাড়ে আটটায় অনুষ্ঠিত হয়েছে জাতীয় মসজিদ নেগারায়।

লাব্বায়েক আল্লাহুম্মা লাব্বায়েক লা শারিকালাকা লাববায়েক ইন্নাল হামদা ওয়ান্নিয়ামাতা লাকাওয়াল মুলক লা-শারিকা লাক ধ্বনিতে মূখরিত হয়ে উঠে মসজিদ প্রাঙ্গন।মসজিদের ভেতর জায়গা না হওয়ায় মসজিদ আঙিনায় মুসল্লিরা নামাজ আদায় করেন। নামাজের আগে কুরবানীর তাৎপর্য নিয়ে আলোচনা করা হয়।

কুরবানি হলো আল্লাহ তা’আলার জন্য ত্যাগ-তিতিক্ষা প্রদর্শনের অন্যতম ইবাদত। যা যুগে যুগে সব নবি-রাসুলের জন্যই বিধিবদ্ধ ছিল। আর বর্তমান কুরবানি আমাদের জন্য হজরত ইবরাহিম আলাইহিস সালাম কর্তৃক পালনীয় ঐতিহাসিক আদর্শ ইবাদত। কুরবানী দেয়ার কিছু মাস-আলা ও মাসায়েল নামায আদায়কারিদের সামনে তুলে ধরেন।

ঈদকে সত্যিকার পরম করুনাময়ের কাছে গৃহীত করতে চাইলে সবধরনের কৃত্রিমতা ও লৌকিকতার মুখোশ ঝেরে ফেলে অনাবিল আনন্দেমেতে ওঠার আহবান জানায় ঈদ। আল্লাহ এবং তার রাসুল (সা:) এর আদর্শের সীমানা ডিঙ্গিয়ে যাতে এর কোন অমর্যাদা না হয় সেদিকে আমাদের সতর্ক থাকা প্রয়োজন ।

পরে বাংলাদেশিরা একে অপরের সঙ্গে কোলাকুলি ও কুশল বিনিময় করেন। আত্মীয়-স্বজনহীন প্রবাসে কিছু সময়ের জন্য হলেও স্থানটি হয়ে উঠে একটি ছোট বাংলাদেশ। সামর্থ্যবান প্রবাসীরা পশু জবাই করে কোরবানি দেন। ঈদ উদযাপনে মালয়েশিয়াস্থ বাংলাদেশ হাইকমিশন, বাংলাদেশ কমিউনিটি প্রেসক্লাব, ব্যবসায়ী, রাজনৈতিক নেতা, মুক্তিযোদ্ধা ও সুশীল সমাজের নেতারা প্রবাসীদের ঈদ শুভেচ্ছা জানান।

এছাড়াও টিটিওয়াংসা বাংলা মসজিদ, সুবাংজায়া বাংলা মসজিদ, সুঙ্গাই বুলুহ, পুচং, মেরু, ক্লাং, জোহর বারু, পেনাং, মালাক্কাতেও ঈদের নামাজ আদায় করেছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here