নিউইয়র্কে বঙ্গবন্ধু স্মারক বক্তৃতা ৯ সেপ্টেম্বর

0
104

বর্ণমালা ডেস্ক: আবার এসেছে ‘বঙ্গবন্ধু সন্মেলন -বঙ্গবন্ধু স্মারক বক্তৃতা’ অনুষ্ঠানের পালা। যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গবন্ধু পরিষদ নিয়মিত এ অনুষ্ঠানটি করতে অঙ্গীকারাবদ্ধ। এই অনুষ্ঠানের চমৎকারিত্ব হলো এর বক্তা একজন এবং বক্তব্যের প্রতিপাদ্য হলো জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান।এবারকার স্মারক বতৃতার বিষয় হচ্ছে: ‘বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ও বাংলাদেশের গ্রাম’ এবং বতৃতা দেবেন জাতিসংঘে কর্মরত বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ ডঃ নজরুল ইসলাম। যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গবন্ধু পরিষদ আয়োজিত পঞ্চম বঙ্গবন্ধু সম্মেলন ও বঙ্গবন্ধু স্মারক বতৃতা ২০১৭ অনুষ্ঠিত হবে আগামী ৯ই সেপ্টেম্বর ২০১৭ সন্ধ্যা ৭টায় জ্যাকসন হাইটসের জুইস সেন্টার অডিটোরিয়ামে। প্রথম থেকে চতুর্থ ‘বঙ্গবন্ধু সন্মেলন ও স্মারক বক্তৃতা’ সফল হবার পর এবার পঞ্চম সন্মেলন। বঙ্গবন্ধু’র ওপর বিশেষজ্ঞদের একক বক্ত্রিতা সুধীমহলে যথেস্ট প্রশংসা কুড়াতে সক্ষম হয়। সেই আলোকে এবার অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে পঞ্চম বঙ্গবন্ধু স্মারক বক্তৃতা এবং এটি অনুষ্ঠিত হবে একটু ভিন্ন আঙ্গিকে।

উল্লেখ্য যে, ক্লাবসনম-এ অনুষ্টিত প্রথম অনুষ্ঠানে স্মারক বক্তা ছিলেন প্রফেসর মুনতাসির মামুন। জ্যাকসন হাইটসের পালকি সেন্টারে দ্বিতীয় সন্মেলনে স্মারক বক্তা ছিলেন সাংবাদিক শাহরিয়ার কবীর। তৃতীয় ও চতুর্থ সম্মেলনে স্মারক বক্তা ছিলেন যথাক্রমে স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধা লে:কর্নেল (অব:) কাজী সাজ্জাদ আলী জহীর, বীরপ্রতিক এবং টিভি ব্যক্তিত্ব, কলামিষ্ট বেলাল বেগ। বঙ্গবন্ধু মাত্র ৫৫ বছর বেঁচেছিলেন। এই সামান্য সময়ের মধ্যে তিনি বাঙ্গালীকে একটি স্বাধীন দেশ উপহার দেন। একজন মানুষের কাছে, বাঙ্গালীর আর কি চাই? আমরা নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসে বসে যে কথা বলতে পারছি, তাও তারই জন্যে, তিনি আমাদের একটি সবুজ পাসপোর্ট দিয়েছিলেন বলেই? বঙ্গবন্ধুর ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ এবং ‘কারাগারের রোজনামচা’ বইগুলো এখন প্রকাশিত হয়েছে। জাতির জনককে জানতে এই বইগুলো পড়ার জন্যে আমরা সবাইকে অনুরোধ করছি।

শ্রেষ্ট বাঙালী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। নিন্দুকেরা বারবার বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি করতে চাইলেও ইতিহাসের পাতায় তিনি চিরভাস্মর থাকবেন। বঙ্গবন্ধু স্মারক বতৃতায় আমরা জাতির জনককে জানতে চেষ্টা করি। এবারের বক্তা ডঃ নজরুল নিশ্চয় আমাদের অনেক নুতন তথ্য দেবেন।শ্রোতারা গভীর মনোনিবেশ সহকারে তার কথা শুনবেন। এবার পঞ্চম ‘বঙ্গবন্ধু সন্মেলন ও বঙ্গবন্ধু স্মারক বতৃতা-৫’ অনুষ্ঠানমালা। সবার সহযোগিতায় এটা চলবে। বঙ্গবন্ধু যত শক্তিশালী হবে, বাংলাদেশ তত এগিয়ে যাবে; জামাত-হেফাজত বা স্বাধীনতা বিরোধীরা দুর্বল হবে, যুদ্বাপরাধীদের বিচারদ্রুত সম্পন্ন হবে, বাঙালি উন্নত জাতিতে পরিনত হবে। এ লক্ষ্যেই দেশে-বিদেশে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ছড়িয়ে দিতে যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গবন্ধু পরিষদের এ ক্ষুদ্র প্রয়াস। এবারকার সন্মেলন সফল করতে বঙ্গবন্ধু পরিষদের সকল নেতাকর্মীর যারা অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন; যারাবিভিন্নভাবে সহযোগিতা করেছেন, সাংবাদিক, শুভানুধ্যায়ীসহ সকল বঙ্গবন্ধু অনুসারীদের জানাই শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here