নিউইয়র্কে প্রধানমন্ত্রীর গণসংবর্ধনার প্রস্তুতি সভা ১৯ সেপ্টেম্বর ম্যানহাটানের মেরিয়ট মারকুইজ হোটেলে গণসংবর্ধনা

0
229

বর্ণমালা নিউজ: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জাতিসংঘের ৭২তম সাধারন পরিষদের অধিবেশনে অংশ গ্রহণের সময়ে নিউইয়র্কের বাংলাদেশী কমিউনিটির পক্ষে তাকে গণসংবর্ধনা দেওয়ার বিষয়ে বিভিন্ন শ্রেণী পেশার প্রতিনিধিদের সাথে মতবিনিময় সভা করেছে ‘যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ’।

গত তেসরা সেপ্টেম্বর রবিবার সন্ধ্যায় জ্যাকসন হাইটসের মেজবান পার্টি হলে এ মতবিনিময় সভায় সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রীর সমবর্ধনার বিভিন্ন দিক নিয়ে কথা বলেন। যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান বলেন, নিউইয়র্কের গণসমবর্ধনা থেকেই আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য রাখবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

জাতিসংঘের ৭২তম সাধারন পরিষদের সভায় যোগ দিতে ১৭ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিউইযর্কে এসে পৌঁচালে জেএফকে বিমানবন্দরে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গ এবং সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মী-সমর্থকরা অভ্যর্থনা জানাবে বলে জানান যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান। এর জন্য ইতোমধ্যেই জেএফকে এয়ারপোর্ট কর্তৃপক্ষের অনুমতিও নিয়ে রাখা হয়েছে বলে জানান তিনি।

১৯ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় ম্যানহাটানের টাইমস স্কোয়ারের মেরিয়ট মারকুইজ হোটেলের বলরুমে প্রধানমন্ত্রীকে গণসংবর্ধনা দেওয়া হবে। এই সংবর্ধনা সমাবেশকে সফল করতে সকল প্রবাসীদের অনুরোধ জানান সিদ্দিকুর রহমান।

এ সময় তিনি আরও বলেন, “২১ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলায় বক্তব্য উপস্থাপনের সময় বাইরে আমরা শান্তিসমাবেশ করবো। এ শান্তিসমাবেশ সফল করার জন্যে এখন থেকে সকলকে টাউন হল মিটিং শুরু করতে হবে।”

প্রধানমন্ত্রীর সাধারন পরিষদের অধিবেশনে বক্তব্য রাখার সময় এবং গণসমবর্ধনার বিরোধী দল বিএনপিকে বিক্ণোভ ও কারো পতাকা প্রদর্শন না দেশের প্রধানমন্ত্রীর প্রতি সম্মান জানানোর আহ্বান জানিয়ে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি সিদ্দিকুুর রহমান বলেন তাদের কোন বক্তব্য বা দাবী দাওয়া থাকলে তারা তা প্রধানমন্ত্রীর কাছে পেশ করতে পারেন।
যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি হুশিয়ারী উচ্চারন করে বলেন, এটা নিউইয়র্ক, লন্ডনে বিএনপি-জামাত গোষ্ঠী যা করেছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সফরের সময়ে তার পুনরাবৃত্তি তারা নিউইয়র্কে করতে পারবে না। আর যদি করার চেষ্ঠা করে তাহলে তাদেরকে সমুচিত জবাব দেয়া হবে।

২৮ সেপ্টেম্বর শেখ হাসিনার জন্মদিনে ভার্জিনিয়ায় আরেকটি সমাবেশ হবে। সেটিকে সফল করতে মেট্রো ওয়াশিংটন এলাকার প্রবাসীদের পাশে থাকার আহ্বান জানান সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান।

যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদের সঞ্চালনায় এ সমাবেশে আরও উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মোহাম্মদ আকতার হোসেন, মাহবুবুর রহমান, সৈয়দ বসারত আলী, আবুল কাশেম এবং লুৎফুল করিম, যুগ্ম সম্পাদক আইরিন পারভিন, সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ ফারুক আহমেদ, মহিউদ্দিন দেওয়ান, আব্দুর রহিম বাদশা, চন্দন দত্ত।

এছাড়া আরও ছিলেন প্রচার সম্পাদক হাজী এনাম, শিল্প ও বাণিজ্য সম্পাদক ফরিদ আলম, মানবাধিকার সম্পাদক মিসবাহ আহমেদ, শিক্ষা সম্পাদক এম এ করিম জাহাঙ্গির, আন্তর্জাতিক সম্পাদক দেওয়ান বজলু, উপ-প্রচার সম্পাদক তৈয়বুর রহমান টনি, উপ-দপ্তর সম্পাদক এম এ মালেক, কোষাধ্যক্ষ মনসুর খান, স্টেট আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক শাহীন আজমল, নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জাকারিয়া চৌধুরী এবং সাধারণ সম্পাদক ইমদাদ চৌধুরী।

আরো উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সোসাইটির সভাপতি কামাল আহমেদ, যুক্তরাষ্ট্র জাসদের সভাপতি আব্দুল মোসাব্বির, সম্পাদক নূরে আলম জিকু, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট উত্তর আমেরিকার সভাপতি মিথুন আহমেদ, যুক্তরাষ্ট্র মুক্তিযোদ্ধা সংসদের আহ্বায়ক এম এ বাতেন, বাংলাদেশি আমেরিকান ডেমোক্র্যাটিক লীগের প্রেসিডেন্ট খোরশেদ খন্দকার।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র যুবলীগের আহ্বায়ক তারেকুল হায়দার চৌধুরী, যুক্তরাষ্ট্র স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নুরুজ্জামান সর্দার, সেক্রেটারি সুবল দেবনাথ, মহিলা আওয়ামী লীগের নেত্রী মমতাজ শাহানা, আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মুক্তিযোদ্ধা এম এ জলিল, মাসুদুল হাসান, প্রদীপ রঞ্জন কর ও হাকিকুল ইসলাম খোকন, আওয়ামী লীগের নির্বাহী সদস্য শাহানারা রহমান।

এদিকে জাতিসংঘে বাংলাদেশ মিশনের ফার্স্ট সেক্রেটারি (প্রেস) নূর এলাহি মিনা এ জানান, ২১ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘ সাধারণ অধিবেশনে বক্তব্য উপস্থাপনের পরই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিউ ইয়র্কের বাংলা মিডিয়াকর্মীদের সাথে মিশনের বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে মিলিত হবেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here