নিউইয়র্কে বাংলাদেশীরা কোন আয়োজনে স্মরণ করলো না ৯/১১ সন্ত্রাসী হামলায় নিহতদের

0
735
৯/১১ এর বাংলাদেশী ভিকটিম (বাম থেকে) মোহাম্মদ সালাহউদ্দিন চৌধুরী, মোহাম্মদ শাহজাহান, নূরুল হক মিয়া, সাব্বির আহমেদ, নূরুল হক মিয়ার স্ত্রী শাকিলা ইয়াসমীন ও আবুল কাশেম চৌধুরী।

বর্ণমালা নিউজ: সোমবার ১১ সেপ্টেম্বর অতিক্রম কররো ভয়াল নাইন ইলেভেনের সন্ত্রাসী হামলার আরো একটি বছর। ১৬ বছর আগে নিউইয়র্কে ৯/১১ সন্ত্রাসী হামলায় ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারে নিহত দুই হাজার ৭৫৩ জনের মধ্যে ছয়জন বাংলাদেশীও ছিলেন। সেদিন তারাও অন্যান্যদের মত বিশ্বের সর্বোচ্চ ভবনটি কাজ করতে গিয়েছিলেন। তারা হলেন সিলেটের মোহাম্মদ সালাহউদ্দিন চৌধুরী, আবুল কাশেম চৌধুরী ও সাব্বির আহমেদ এবং মৌলভীবাজারের শাকিলা ইয়াসমীন, কুমিল্লার মোহাম্মদ শাহজাহান ও ময়মনসিংহের নূরুল হক মিয়া। ওই দিন আরো দুটি স্থানসহ ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারে হামলায় নিহত হয়েছেন সর্বমোট দুই হাজার ৯৭৭ জন।

বহুজাতিগোষ্ঠীর শহর নিউইয়র্কে প্রতি বছর ১১ সেপ্টেম্বর ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারে নিহতদের গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করা নিউইয়র্ক সিটি প্রশাসন, স্টেট ও কেন্দ্রীয় সরকারের উদ্যোগে। এর পাশাপাশি যেসব দেশের মানুষ প্রাণ হারিয়েছিলো তাদের কমিউনিটিও নিউইয়র্ক সহ পুরো আমেরিকায় পৃথকভাবে তাদের দেশের মানুষগুলোকে স্মরণ করে। কিন্তু বাংলাদেশী কমিউনিট ৯/১১-কে তেমনভাবে স্মরণ করে না। বাংলাদেশ সোসাইটি, জাললাবাদ এসোসিয়েশন, মৌলভী বাজার সমিতি, কুমিল্লা নাম নিয়ে গড়া হাফ ডজন সংগঠন বা ময়মনসিংহ নামের কোন সংগঠন। অথচ বাংলাদেশ সোসাইটি কেন্দ্রীয় সংগঠন হিসাবে উল্লেখিত আঞ্চলিক সংগঠনগুলোকে নিয়ে একটি কেন্দ্রীয় স্মরণসভার আয়োজন করলে ৯/১১ সন্ত্রাসী হামলায় নিহত বাংলাদেশীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে সমবেত হতে পারতেন সব বাংলাদেশী। সেইসাথে বাংলাদেশ সোসাইটির বার্ষিক কর্মসূচীতেও এই দিবসটি পালনের জন্য তা গঠণতন্ত্রে অন্তভূক্ত কারও উচিৎ।

নিউইয়র্ক বাংলাদেশ কন্স্যুলেট বছরজুড়ে অনেক বিষয় নিয়ে অনুষ্টানাদি করে থাকে কিন্তু তারা যদি এই দিনটি আনুষ্ঠানিকভাবে পালন করে সিটির উর্ধতন কর্মকর্তাদের আমন্ত্রণ করতেন তাহলে রাষ্ট্রীয়ভাবেও নিহত বাংলাদেশীদের স্মরণ করা হয়ে যেত। একই সাথে ওয়াশিংটন বাংলাদেশ দূতাবাসেও দিবসটি স্মরণ করে স্টেট ডিপাটৃমেন্টের কর্মকতাদের আমন্ত্রন করা গেলে আমেরিকার জন্য প্রাণবিসর্জনকারী বাংরাদেশীদের কথা বারবার মনে করিয়ে দেয়া যেতে আমেরিকার প্রশাসনকে।

৯/১১ সন্ত্রাসী হামলা আমেরিকার ইতিহাসের এক বিরাট ক্ষত হয়ে চিহ্নিত হয়ে থাকবে যুগ যুগ। আর এতে রক্তক্ষরণ হয়েছে আমাদের বাংলাদেশীদেরও। আমেরিকার এই ইতিহাসের সাথে বাংলাদেশীদের নামও চিরদিন উচ্চারিত হবে যেমন প্রতিবছরের মত এবছরও ৯/১১ সন্ত্রাসী হামলা নিহতদের স্মরণে ওয়াল্ড ট্রেড সেন্টারে নিহতদের স্মরণ করার সময় উচ্চারিত হচ্ছে ৬ বাংলাদেশীর নাম।

নিউইয়র্ক সিটির গ্রাউন্ড জিরোতে এবারী সবচেয়ে বড় স্মরণ সমাবেশ হয়েছে। এই জায়গাতেই ছিল বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু দুটি টাওয়ার যা টুইন টাওয়ার নামে খ্যাত ছিল। ছিনতাইকৃত দুটি যাত্রীবাহী বিমানে টাওয়ার দুটি ধ্বংস করা হয়েছে। সভ্যতার ইতিহাসে এটি হচ্ছে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে ভয়ঙ্কর নৃশংসতা। আর এ সন্ত্রাসী হামলায় অংশগ্রহণকারী সবাই সৌদি আরবের নাগরিক বলে আমেরিকার প্রশাসন চিহ্নিত করেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here