রোহিঙ্গা গণহত্যার প্রতিবাদে নিউইয়র্কে মায়ানমার কন্স্যুলেট ঘেরাও

0
236

বর্ণমালা ডেস্ক: নিউইয়র্কের ম্যানহাটানের মায়ানমার কন্স্যুলেটের সামনে মায়ানমার সরকার কর্তৃক রোহিঙ্গা মুসলিমদের গণহত্যা, ধর্ষন ও তাদের বাড়ি-ঘর নির্বিচারে জ্বালিয়ে দিয়ে তাদেরকে বাংলাদেশে জোরপূর্বক বিতাড়িত করার প্রতিবাদে ব্রঙ্কস বায়তুল ইসলাম মসজিদের উদ্যোগে মায়ানমার এ্যাম্বাসীর সম্মূখে এক বিশাল বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
গত ১১ই সেপ্টেম্বর সোমবার বেলা ১১টায় শুরু হওয়া বিক্ষোভ সমাবেশে নিউইয়র্কের বাংলাদেশ, তুরষ্ক, ইন্দোনেশিয়া, মালেশিয়া, পাকিস্তানী, ভারত, মিশর সহ আফ্রিকার মুসলিম অভিবাসীরা অংশ নিয়ে মায়ানমার বিক্ষোভে ফেটে পড়েন। বিক্ষোভে নিউইয়র্কের ব্রঙ্কস থেকে বায়তুল ইসলাম মসজিদ এন্ড কমিউনিটি সেন্টার ইন্ক এর পক্ষ থেকে ব্যানার নিয়ে মসজিদের ইমাম ও খতিব মাওলানা ক্বারী মোহাম্মদ রহমত উল্যাহ্ মজিদী ও মাওলানা মাহাবুবুর রহমান সহ মসজিদ কমিটির সভাপতি জনাব ফয়েজ আহমেদ এর নের্তৃত্বে মসজিদ কমিটির সদস্যবৃন্দ ও বিপুল সংখ্যক মুসল্লী বিক্ষোভ সমাবেশে অংশ নেন।

মায়ানমার এ্যাম্বেসি ঘেরাও বিক্ষোভ সমাবেশে বিভিন্ন দেশের কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন। নেতৃবৃন্দ তাঁদের বক্তব্যে বলেন- পৃথিবীর ইতিহাসে জঘণ্যতম ও ঘৃনিত জাতি হিসেবে মায়ানমারের পরিচিতি লিপিবদ্ধ হয়ে থাকবে। কারন মায়ানমার সরকার যেভাবে নিরীহ মুসমানদের উপর নির্বিচারে গণহত্যা, ধর্ষণ ও তাদের বাড়ি-ঘর জ্বালিয়ে দিয়ে জোরপূর্বক বাংলাদেশে বিতাড়িত করে যে অমানবিক ও অমানষিক নির্যাতন নিপিড়ন চালাচ্ছে তার নিন্দা করার ভাষা আমাদের জানা নেই। বক্ত্যাগণ বলেন বিশ্বের সকল মুসলিম দেশকে মায়ানমারের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে এবং মায়ানমারের সাথে সকল প্রকার কূটনৈতিক ও বাণিজ্যিক সম্পর্ক ছিন্ন করতে হবে এমনকি মায়ানমারের বিরুদ্ধে রোহিঙ্গা মুসলমানদের অধিকার রক্ষা ও আরাকান রাজ্যকে পূণরুদ্ধারে ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে আসতে হবে।

বক্তারামায়ানমারের রাষ্ট্রপ্রধান অং সান সূচির নোবেল পুরষ্কার ফিরিয়ে নেওয়ারও আহ্বান জানান।

পরিশেষে রোহিঙ্গা শহীদ মুসলিমদের জন্য দোয়া করা হয় এবং মজলুম রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর জন্য মহান আল্লাহ্র নিকট গায়েবী মদদ কামনা করা হয়।

এছাড়াও ৯/১১’র মৃতদের আত্মার মাগফেরাত কামনাসহ মৃতদের স্বজনদের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করা হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here