দূর্বৃত্তের গুলিতে আটলান্টায় মাসের ব্যবধানে ৩ বাংলাদেশি নিহত

বাঁ থেকে নিহত সাইফুল ভুঁইয়া, রেজোয়ান এ দীপংকর দাস

মনজিলুর রহমান, আটলান্টা থেকে: মাত্র এক মাসের ব্যবধানে দূর্বৃত্তের গুলিতে আটলান্টায় প্রাণ হারালেন  ৩ বাংলাদেশি । সর্বশেষ প্রাণহানির শিকার হন দীপংকর দাস (৫৭) । তিনি ডাউন টাউন আটলান্টায় নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ১৪ অক্টোবর কৃষ্ণাঙ্গ  বন্দুকধারির গুলিতে মারাত্মকভাবে আহত পর  ১৩দিন  মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে   ২৭ অক্টোবর শুক্রবার মৃত্যুর কাছে হার মানেন।

দীপংকর দাস গত ১৪ অক্টোবর সকাল সাড়ে ১০টায়। আটলান্টা  ক্যাসকেড রোডস্থ জি কর্ণার ফুড মার্টে ডাকাতির সময় এ মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে। ব্রেনডেড অবস্থায় তাকে নিকটস্থ গ্র্যাডি মেমরিয়াল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল।

আটলান্টা পুলিশ সুত্রে জানা যায়  ‘তরুণ বয়েসী এক বন্দুকধারি দীপংকরের মাথায় তাক করে গুলি ছুড়েছিল। দীপংকর দোকানের মেঝেতে লুটিয়ে পড়ার পর ক্যাশ বাক্স থেকে নগদ সব ডলারসহ লটারির কিছু টিকিট নিয়ে গেছে দুর্বৃত্তটি। দুর্বৃত্তের ছবি সর্বসাধারণের জন্যে প্রচার করা হয়েছে। পুলিশী অভিযান অব্যাহত রয়েছে তাকে গ্রেফতারের জন্যে। ’

মৌলভীবাজার জেলা সদরের অধিবাসী দীপকংকর দাসের ১৬ বছর বয়েসী পুত্র দেব জ্যোতি পড়ছে একাদশ গ্রেডে। একমাত্র কন্যার বয়স ১৩ বছর এবং আটলান্টার একটি হাই স্কুলে নবম গ্রেডে পড়ছে। দীপংকরের স্ত্রী এখন শুধু কেঁদে দিন কাটাচ্ছেন। উল্লেখ্য, দীপংকর নিউইয়র্কে বসবাস করছিলেন। নিউইয়র্কস্থ ‘শ্রীকৃষ্ণ ভক্তসংঘ, ইউএসএর ভাইস প্রেসিডেন্ট ছিলেন।

এর ঠিক এক মাস পূর্বে  দুর্বৃত্তের গুলিতে মারা গেছেন আরো দুই বাংলাদেশি। তারা  হলেন  ব্যবসায়ী সাইফুল ভূইয়া (৩৬) এবং তার দোকানের কর্মচারি রেজওয়ানুল ইসলাম (২০)।

১০ সেপ্টেম্বর রাত ১১টায় আটলান্টা সিটির সাউদার্ন গ্রোসারি স্টোর বন্ধ করে কর্মচারিসহ নিজ গাড়িতে উঠার সময়ই দুর্বৃত্তের গুলিতে নিহত হন সাইফুল ইসলাম ভূইয়া। এ সময় মারাত্মকভাবে আহত হন কর্মচারি রেজওয়ানুল ইসলাম।  স্থানীয় গ্রেডি মেমরিয়াল হাসপাতালে  চিকিৎসা শেষে  ৪ দিন পর সেও মারা যান ।

স্থানীয় সিটি কাউন্সিলম্যান ক্লেতা উইন্সলো গণমাধ্যমকে বলেছেন, ‘২০১০ সালে একইভাবে এই গ্রোসারি স্টোরের সে সময়ের মালিক বাইক সাং -কেও দৃর্বৃত্তরা গুলি করে হত্যা করেছে।

দীপংকর দাসের হত্যাকাণ্ডের নিন্দা এবং অবিলম্বে ঘাতক গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রস্থ বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাবেক সেক্রেটারি ও শ্রীকৃষ্ণ ভক্তসংঘের নেতা সুশীল সাহা। তিনি নিহতের পরিবারের প্রতি সহমর্মিতাও জ্ঞাপন করেছেন।

পৃথক দৃটি সশস্ত্র ডাকাতির ঘটনার সাথে জড়িতরা এখনও গ্রেফতার না হওয়ায় প্রবাসী বাংলাদেশিদের মধ্যে ভীতির সঞ্চার হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here