বর্ণাঢ্য আয়োজনে নিউইয়র্ক বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের নতুন কমিটি অভিষিক্ত

0
240

নিউইয়র্ক : প্রবাসী বাংলাদেশী সাংবাদিকদের মধ্যকার সৌহার্দ্য-সম্প্রীতি জোরদারের পাশাপাশি পেশাদারীত্বকে অক্ষুন্ন রাখার প্রত্যয়ে অভিষিক্ত হলেন নিউইয়র্ক বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের নতুন কমিটির কর্মকর্তারা। এ উপলক্ষ্যে আয়োজিত বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের প্রখ্যাত সাংবাদিক মরহুম ফাজলে রশীদ স্মরণে প্রদত্ত ‘ফাজলে রশীদ সম্মাননা’ প্ল্যাক প্রদান করা হয়। প্রথমবারের মতো চলতি বছর এই সম্মাননা লাভ করেন প্রবীণ সাংবাদিক মনজুর আহমদ।

এদিকে বাংলাদেশী কমিউনিটিকে সাথে নিয়ে আমেরিকান ও অভিবাসীদের অধিকার আদায়ে সর্বদা সোচ্চার থাকার আশ্বাস দিয়েছেন নিউইয়র্কের কুইন্স থেকে নির্বাচিত ইউএস কংগ্রেসওমেন গ্রেস মেং। নিউইয়র্ক-বাংলাদেশ প্রেসক্লাব-এর নব-নির্বাচিত কমিটিকে অভিনন্দন জানানোর সময় কমিউনিটির অগ্রযাত্রায় সদা সচেষ্ট থাকার কথাও জানান গ্রেসমেং। গত ৮ জানুয়ারী সোমবার সকালে প্রেসক্লাবকে একটি সম্মাননা প্রোক্লেমেশনও প্রদান করেন তিনি। প্রোক্লেমেশন গ্রহণকালে প্রেসক্লাবের নবনির্বাচিত সভাপতি ডা. ওয়াদেজ এ খান ও সাধারণ সম্পাদক শিবলী চৌধুরী কায়েস সহ কার্যনির্বাহী কমিটির কয়েকজন সদস্য উপস্থিত ছিলেন। আগামী দিনে প্রবাসী সাংবাদিকদের এই সংগঠনটিকে গতিশীল করতে কংগ্রেসওমেনের সাথেও কাজ করার অঙ্গীকার করেন প্রেসক্লাবের কর্মকর্তারা। তারা এসময়ে সংগঠনের বিভিন্ন কার্যক্রম তুলে ধরেন এবং কমিউনিটির অগ্রযাত্রায় গ্রেস মেং-এর সহযোগিতা কামনা করেন। কংগ্রেসওম্যান গ্রেস মেং বাংলাদেশী কমিউনিটি সহ ্এথনিক মিডিয়া ও সাংবাদিকদের পাশে থাকারও প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। খবর ইউএনএ’র।

সিটির জ্যাকসন হাইটসস্থ বেলজিনো পার্টি হলে ১২ জানুয়ারী শুক্রবার সন্ধ্যায় নিউইয়র্ক বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের দ্বি-বার্ষিক (২০১৮-২০১৯) কার্যকরী কমিটির নতুন কর্মকর্তাদের অভিষেক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে দেশ ও প্রবাসের নামী-দামী সাংবাদিক সহ মূলধারা ও কমিউনিটির সর্বস্তরের বিশিষ্ট ব্যক্তিদের উপস্থিতিতে অনুষ্ঠানটি মিলনমেলায় পরিণত হয় এবং ভিন্নরূপ ধারণ করে। প্রেসক্লাবের ব্যতিক্রমী অনুষ্ঠানটি তিন পর্বে বিভক্ত ছিলো। প্রথম পর্বে ছিলো নতুন কমিটির পরিচিতি, দ্বিতীয় পর্বে ছিলো ‘ফাজলে রশীদ সম্মাননা’ প্রদান শুভেচ্ছা বক্তব্য ও সুভেনীর ‘মূলধারা’র মোড়ক উন্মোচন আর তৃতীয় পর্বে ছিলো মনোজ্ঞ সঙ্গীতানুষ্ঠান ও ডিনার।

অনুষ্ঠানের প্রথম পর্বে সভাপতিত্ব করেন অভিষেক অনুষ্ঠান কমিটির চেয়ারম্যান ও সাপ্তাহিক দেশবাংলা/বাংলা টাইমস সম্পাদক ডা. চৌধুরী সারোয়ারুল হাসান। শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন প্রেসক্লাবের সদস্য ও ইয়র্ক বাংলা সম্পাদক রশীদ আহমদ। এরপর বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করা হয়। পরবর্তীতে নতুন কমিটিকে পরিচয় করিয়ে দেন ডা. চৌধুরী সারোয়ারুল হাসান। এসময় প্রেসক্লাবের উপদেষ্টা যথাক্রমে মনজুর আহমদ, নিনি ওয়াহেদ, আনোয়ার হোসাইন মঞ্জু ও মঈনুদ্দীন নাসের, ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মাহবুবুর রহমান এবং অভিষেক কমিটির কো-চেয়ারম্যানদ্বয় যথাক্রমে সাপ্তাহিক বর্ণমালা’র প্রধান সম্পাদক মাহফুজুর রহমান এবং সাপ্তাহিক বাংলা পত্রিকা’র সম্পাদক ও টাইম টেলিভিশন-এর সিইও আবু তাহের মঞ্চে উপবিষ্ট ছিলেন।

অনুষ্ঠানে অভিষিক্ত কর্মকর্তারা হলেন: সভাপতি- ডা. ওয়াজেদ এ খান (সম্পাদক, সাপ্তাহিক বাংলাদেশ), সহ সভাপতি- মনোয়ারুল ইসলাম (ফ্রিল্যান্স), সাধারণ সম্পাদক- শিবলী চৌধুরী কায়েস (টাইম টেলিভিশন), যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক- মোহাম্মদ আলমগীর সরকার (বাংলা টাইমস), অর্থ সম্পাদক- মমিনুল ইসলাম মজুমদার (বিএনিউজ২৪.কম), সাংগঠনিক সম্পাদক- চৌধুরী মোহাম্মদ কাজল (দি ডেইলী সিটিজেন টাইমস), প্রচার সম্পাদক- সৈয়দ ইলিয়াস খসরু (টাইম টেলিভিশন) এবং কার্যকরী পরিষদ সদস্য- শেখ সিরাজুল ইসলাম (সাপ্তাহিক বাংলা পত্রিকা), এবিএম সালাহউদ্দিন আহমেদ (হককথা.কম), রশীদ আহমদ (ইয়র্ক বাংলা) এবং মোহাম্মদ সোলায়মান (সাপ্তাহিক বাংলাদেশ)। প্রেসক্লাবের নবনির্বাচিত কর্মকর্তাদের অভিষেক অনুষ্ঠান কমিটির পক্ষ থেকে ফুল দিয়ে বরণ করা হয়।

অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে সভাপতিত্ব করেন প্রেসক্লাবের নবনির্বাচিত সভাপতি ডা. ওয়াজেদ এ খান। এই পর্বের শুরুতে ‘ফাজলে রশীদ সম্মাননা’ প্ল্যাক প্রদান করা হয়। প্রেসক্লাবের কর্মকর্তা ও উপদেষ্টাগণ প্রবীণ সাংবাদিক মনজুর আহমদ-এর হাতে প্ল্যাকটি তুলে দেন। এসময় উপস্থিত সকলে করতালি দিয়ে সাংবাদিক মনজুর আহমদকে শুভেচ্ছা আর অভিনন্দন জানান। এর আগে সাংবাদিক ফাজলে রশীদ ও মনজুর আহমদ সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত জীবনী তুলে ধরেন প্রেসক্লাকের নবনির্বাচিত সভাপতি ও ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি’র সাবেক সাধারণ সম্পাদক মনোয়ারুল ইসলাম। এসময় মনজুর আহমদ তার সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে বলেন, প্রখ্যাত সাংবাদিক ফাজলে রশীদ স্মরণে প্রথমবারের মতো প্রদত্ত সম্মাননা প্ল্যাক পাবো তা ভাবিনি এবং এ বিষয়ে কিছু জানতামও না। ফলে আমি বিস্মিত। আর যেজন্য আমাকে এই সম্মাননা জানানো হলো তার কিছুই আমি করেছি বলে বা যোগ্য বলে নিজেকে মনে করি না। তারপরও বলতে হয়, আমি আনন্দিত।

এরপর শুভেচ্ছা বক্তব্য পর্বে আলোচনায় অংশ নেন একুশে পদকপ্রাপ্ত বাংলাদেশের সনামধন্য ফটো সাংবাদিক মোহাম্মদ কামরুজ্জামান, প্রেসক্লাবের উপদেষ্টা যথাক্রমে নিনি ওয়াহেদ, আনোয়ার হোসাইন মঞ্জু ও মঈনুদ্দীন নাসের, ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মাহবুবুর রহমান, সাবেক সভাপতি আবু তাহের ও মাহফুজুর রহমান, সাপ্তাহিক পরিচয় সম্পাদক নাজমুল আহসান, সাপ্তাহিক ঠিকানা’র প্রধান সম্পাদক মুহাম্মদ ফজলুর রহমান, এখন সময় সম্পাদক কাজী সামসুল হক, সাপ্তাহিক জন্মভূমি সম্পাদক রতন তালুকদার, সাপ্তাহিক আজকাল-এর প্রধান সম্পাদক জাকারিয়া মাসুদ জিকো, সাপ্তাহিক প্রবাস সম্পাদক মোহাম্মদ সাঈদ, আমেরিকা বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের সভাপতি ও সাপ্তাহিক দেশকন্ঠ সম্পাদক দর্পণ কবীর ও সাপ্তাহিক জনতার কন্ঠ সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন সেলিম।

এছাড়াও শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ সোসাইটি ইনক’র সাবেক সভাপতি নার্গিস আহমেদ ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক ফখরুল আলম, বিশিষ্ট রাজনীতিক গিয়াস আহমেদ, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও জেবিবিএ’র সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবুল ফজল দিদারুল ইসলাম ও কমিউনিটি অ্যাক্টিভিষ্ট মোহাম্মদ ফখরুল ইসলাম দেলোয়ার।

অনুষ্ঠানে বক্তারা প্রবাসে বাংলাদেশী কমিউনিটির প্রবাসে মিডিয়াগুলোর ভূমিকা অনস্বীকার্য উল্লেখ করে বলেন, কমিউনিটি তথা সমাজের দর্পণ হিসেবে কমিউনিটি সাংবাদিকতায় আরো পেশাদারিত্ব প্রয়োজন। কোন কোন বক্তা সাংবাদিকতার নামে অপসংবাদিকতার কথা তুলে ধরেন এবং কমিউনিটির এই অপসাংবাদিকতা রোধে প্রকৃত সাংবাদিকদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান। বক্তারা বিভক্ত সাংবাদিকদের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার উপর গুরুত্বারোপ করেন।

শুভেচ্ছা বক্তব্য শেষে প্রেসক্লাবের নতুন কর্মকর্তাদের অভিষেক উপলক্ষ্যে প্রকাশিত বাহারী রং-এর সুভেনীর ‘মূলধারা’র মোড়ক উন্মোচন করেন প্রখ্যাত ফটো সাংবাদিক মোহাম্মদ কামরুজ্জামান। এসময় ‘মূলধারা’র সম্পাদক মনোয়ারুল ইসলাম শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন।

অনুষ্ঠানের তৃতীয় পর্বের স্ংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সঙ্গীত পরিবেশন করেন প্রবাসের জনপ্রিয় দুই সঙ্গীত শিল্পী তনিমা হাদী ও চন্দন চৌধুরী। শিল্পীদ্বয়ের গান উপস্থিত দর্শক-শ্রোতাদের মুগ্ধ করে। সাউন্ড সিস্টেমে ছিলো বিডি সাউন্ড। অনুষ্ঠানটি যৌথভাবে উপস্থাপনায় ছিলেন বিশিষ্ট সাংবাদিক হাসানুজ্জামান সাকী ও টিভি নিউজ প্রেজান্টার দিমানেফার তিতি। পুরো অনুষ্ঠান টাইম টেলিভিশন (ফেসবুক সহ) সরাসরি সম্প্রচার করে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here