ভ্রমণ যখন নেশা, ব্যাধির নাম তখন ‘ভেগাবন্ড নিউরোসিস’

0
67

যে কাজগুলো করতে মানুষের সবচেয়ে বেশি ভালো লাগে, তার মধ্যে ভ্রমণ আছে নিশ্চয়। এত ভালো লাগার বিষয় দেখেই হয়তো এটা নেশাতে পরিণত হয়। অতি ঘরকুনো মানুষটিও যখন ভ্রমণে যান, তখন আর ফিরতে চান না। কিংবা ফিরলেও দ্রুত বেরিয়ে পড়ার পরিকল্পনা চলতে থাকে মাথায়। এমনও পর্যটক আছেন, যারা সেই কবে ঘর ছেড়েছেন, আর ফেরেননি। কিংবা ফিরলেও মন টেকে না। তারা আবারো ছুটে যান। এক গবেষণায় বলা হয়েছে, ভ্রমণ এক মারাত্মক নেশা হয়ে দেখা দিতে পারে। এক ভ্রমণে সবকিছু না দেখতে পারা, পরবর্তী ভ্রমণের তাগাদা মন থেকে ঝেড়ে ফেলতে না পারা আর রোমাঞ্চকর অভিজ্ঞতা না লাভ করতে পারার যন্ত্রণা ইচ্ছাকে নেশায় পরিণত করে। আজ ভ্রমণের নতুন কোনো স্থান নিয়ে কথা নাই বলা হোক। জেনে নিন ভ্রমণের নেশা বিষয়ে কিছু কথা।

আপনিও এই ভ্রমণে আসক্তদের তালিকার কেউ হতে পারেন। তবে যদি ভ্রমণের কারণে আপনি স্বপ্নের চাকরি, সঙ্গী-সংসার, বাড়ি-ঘর সব ছেড়ে দেন। জীবনে যে পরিমাণ অর্থ-বিত্ত রয়েছে তার সবই ভ্রমণের পেছনে ঢেলে দেন ভ্রমণের পেছনে। এ ক্ষেত্রে নেশাটাকে স্বাভাবিক বলে মনে করা হয় না। এটা অবশ্যই ক্ষতিকর।

গবেষণায় বলা হয়, ভ্রমণে আসক্তরা পৃথিবীর প্রতিটা দেশে ভ্রমণের পরিকল্পনা করেন। কিংবা কোনো দেশের প্রত্যেকটি শহর না দেখে ক্ষান্ত হন না। এদের সবাই পেশা থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েন। চাকরি বা ব্যবসা ছেড়ে দেন। কিন্তু ভবিষ্যতে জীবন চালাতে অর্থের উৎস কী হবে, তা নিয়ে কোনো চিন্তা থাকে না।
যারা অভিজ্ঞতা বৃদ্ধি, জীবনে বাড়তি আনন্দযোগ আর মানসিক চাপ থেকে মুক্তির জন্যে নয়, বরং নতুন নতুন স্থানে যাওয়া একমাত্র লক্ষ্য বানিয়ে ফেলেন তারাই মাদকাসক্তের মতো ভ্রমণে আসক্ত। তাই ভ্রমণ এক নতুন আসক্তি হয়ে মনোবিজ্ঞানীদের কাছে ধরা দিয়েছে, যাকে বলা হয় ‘ভেগাবন্ড নিউরোসিস’। ২০০০ সালে চিকিৎসাবিজ্ঞান পরীক্ষা-নিরীক্ষার মাধ্যমে একে ‘মানসিক ব্যাধি’ বলে গণ্য করেছে।

তাই একজন পর্যটককে নতুন স্থানে যাওয়ার ইচ্ছাটাকে সীমার মধ্যে রাখতে হবে। যদিও চিকিৎসাবিজ্ঞান এটাকে নিয়ে আরো গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছে। যারা আসক্ত তারা কোনো ভ্রমণ শেষে কখনই তৃপ্ত হতে পারেন না। নতুন কোনো স্থান যাওয়ার নেশা তাদের মনে অশান্তি ডেকে আনে। কিন্তু স্বাভাবিক পর্যটকরা কোনো স্থানে ভ্রমণ শেষে অনাবিল আনন্দ আর অভিজ্ঞতা নিয়েই বাড়ি ফেরেন। আর এটাই ভ্রমণের মূলমন্ত্র।
সূত্র : হ্যাপি ট্রিপস

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here