৩১ মার্চ নিউইয়র্কে ড. নীনার নির্বাচনী সমাবেশ

0
50

নিউইয়র্ক থেকে : পেনসিলভেনিয়া অঙ্গরাজ্যের লে. গভর্নর পদে ডেমোক্রেটিক পার্টির মনোননের লড়াইয়ে অবতীর্ণ বাংলাদেশি-আমেরিকান ড. নীনা আহমেদের নির্বাচনী তহবিল সংগ্রহের প্রথম অনুষ্ঠান হচ্ছে নিউইয়র্কে ৩১ মার্চ।

ফ্রেন্ডস অব ড. নীনা’র ব্যানারে নিউইয়র্ক সিটির জ্যাকসন হাইটসে ‘বেলাজিনো পার্টি’ হলে এদিন বেলা ১২টায় তহবিল সংগ্রহের এ অনুষ্ঠানের হোস্ট হিসেবে বিশিষ্টজনেরা কাজ করছেন।
এদের অন্যতম হলেন পিপল এন টেকের প্রধান নির্বাহী ইঞ্জিনিয়ার আবু হানিফ, এলায়েন্স অব সাউথ এশিয়ান-আমেরিকান লেবারের জাতীয় সভাপতি প্রখ্যাত শ্রমিক ইউনিয়ন নেতা মাফ মিসবাহ, বিজ্ঞানী, মুক্তিযোদ্ধা ও নিউজার্সির প্লেইন্সবরো টাউনশিপের কাউন্সিলম্যান ড. নূরন্নবী, মুক্তিযোদ্ধা-সাংবাদিক লাবলু আনসার।
আত্মমানবতার সেবায় ইতিমধ্যেই সকলের দৃষ্টি আকর্ষণকারি সংস্থা ‘আ. কাদের মিয়া ফাউন্ডেশন’র চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আব্দুল কাদের মিয়া এবং উত্তর আমেরিকায় নীরব সমাজকর্মী হিসেবে পরিচিত ড. জিয়াউদ্দিনও রয়েছেন সার্বিক সহযোগিতায়।

উল্লেখ্য, প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার এশিয়ান-আমেরিকান উপদেষ্টা হিসেবে দায়িত্ব পালনের পর ফিলাডেলফিয়া সিটির ডেপুটি মেয়র হিসেবেও অধিষ্ঠিত হওয়া ড. নীনা প্রথমে ফিলাডেলফিয়া সিটি এলাকা নিয়ে গঠিত ‘পেনসিলভেনিয়া কংগ্রেসনাল ডিস্ট্রিক্ট-১’ থেকে নির্বাচনের জন্যে মাঠে নেমেছিলেন। এমনি অবস্থায় সেই নির্বাচনী এলাকা সংস্কারের নামে খন্ড-বিখন্ড করায় ড. নীনার ভোট ব্যাংকে বিভক্তি রচনা করা হয়েছে তাকে কৌশলে সরিয়ে দেয়ার অভিপ্রায়ে।

জানা গেছে, এরপরই তিনি কংগ্রেসে লড়ার পরিকল্পনা বাদ দিয়ে আরো বড় আসন ‘লে. গভর্নর’ পদে দাঁড়িয়েছেন। ইতিমধ্যেই নির্বাচনী ব্যালটে নাম উঠার জন্যে প্রয়োজনীয় এক হাজার ভোটারের স্থলে ৪২৮৯ ভোটারের স্বাক্ষর সম্বলিত আবেদন নির্বাচন কমিশনে জমা হয়েছে। ১৫ মে অনুষ্ঠিত হবে পেনসিলভেনিয়া অঙ্গরাজ্যে ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রাইমারি। সেখানে তার জয়ের সম্ভাবনা অত্যন্ত উজ্জ্বল। তবে এজন্যে দরকার বিস্তর তহবিল। ইতিমধ্যেই পেনসিলভেনিয়া, নিউজার্সি, ভার্জিনিয়াসহ বিভিন্ন স্থানে তহবিল গঠনের অনুষ্ঠান হয়েছে। আরো কটি অনুষ্ঠানের তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে ক্যালিফোর্নিয়াসহ বিভন্ন স্থানে। তবে সকলের দৃষ্টি নিউইয়র্কের অনুষ্ঠানের প্রতি। কারণ, সবচেয়ে বেশী বাংলাদেশি-আমেরিকান বাস করছেন নিউইয়র্ক-নিউজার্সি-কনেকটিকাট অঞ্চলে।
হোস্টরা জানিয়েছেন, ‘মার্কিন প্রশাসনে বাংলাদেশি তথা অভিবাসী সমাজের মৌলিক অধিকার আদায়ের ক্ষেত্রে নির্ভরযোগ্য ও পরীক্ষিত সংগঠক হিসেবে ড. নীনার বিকল্প নেই। ব্যক্তিগতভাবে একজন মেধাবি বিজ্ঞানী হয়েও প্রায় ৩০ বছর যাবত অভিবাসী সমাজের জন্যে মাঠে কাজ করা ড. নীনার পক্ষে পেনসিলভেনিয়ার প্রত্যন্ত অঞ্চলেও গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। এ সুযোগ হাতছাড়া করা সমীচীন হবে না।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here