জাতির পিতার জন্মদিনের উপহার

0
32

নিউইয়র্ক: জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন বলেছেন, ‘জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাঙালিকে সামনে এগিয়ে যাবার প্রেরণা দিয়েছেন। স্বপ্ন দেখিয়েছিলেন সোনার বাংলা রচনার। তাঁর সেই স্বপ্নের বাস্তবায়ন ঘটাতে সমগ্র বাঙালি জাতি আজ বঙ্গন্ধুর সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ। স্বল্পোন্নত দেশের তালিকা থেকে পদোন্নতির ঘটনায় তা প্রমাণিত হলো’

১৭ মার্চ হচ্ছে জাতির জনকের জন্মদিন। ঠিক সে দিনটির প্রাক্কালে (বাংলাদেশে ১৭ মার্চ) স্বল্পোন্নত রাষ্ট্র থেকে উন্নয়নশীল রাষ্ট্রে উন্নীত হবার এই স্বীকৃতি কি বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনের পুরস্কার- এমন প্রশ্নের জবাবে এই কূটনীতিক বলেন, ‘এটা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বাস্তবায়নের পথে অবিস্মরণীয় একটি ঘটনা। এ অর্জনের স্বীকৃতির দিনটিও কাকতালিয়ভাবেই বাঙালি জাতির মহানায়কের জন্মদিনে পড়লো। আজ আমিও গভীর শ্রদ্ধায় তাঁকে স্মরণ করছি।’

জাতিসংঘে বাংলাদেশ মিশনে শুক্রবার সন্ধ্যায় (বাংলাদেশ সময় ১৭ মার্চ ভোর ৫টা) অনাড়ম্বর এক অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রদূত মাসুদ জাতিসংঘের ‘কমিটি ফর ডেভেলপমেন্ট পলিসি’ তথা সিডিপি’র শীর্ষ কর্মকর্তার কাছে থেকে গ্র্যাজুয়েশনের স্বীকৃতিপত্র গ্রহণের পর এসব কথা বলেন। এসময় তিনি আরো বলেন, ‘আজ থেকে ঠিক ২৫ বছর আগে জাতিসংঘের এই মিশনে আমি সেকেন্ড কমিটির কর্মকর্তা হিসেবে স্বল্পোন্নত দেশের কার্যক্রমে জড়িত ছিলাম। বছরখানেক আগে এই মিশনের প্রধান হিসেবে যোগদানের পর জাতিসংঘে স্বল্পোন্নত রাষ্ট্রসমূহের যে সংস্থা রয়েছে, তার অধিকর্তার দায়িত্ব পালন করি। সেই পথ-পরিক্রমাতেই আজ আমাদের সেই স্বল্পোন্নত রাষ্ট্রের তালিকা থেকে পদোন্নতি লাভ করার সুযোগ ঘটলো। আমার ব্যক্তি জীবনের মত গোটা বাংলাদেশই আজ উন্নয়নের মহাসড়কে ধাবিত হচ্ছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিচক্ষণতাপূর্ণ নেতৃত্বে।’

এ সময় রাষ্ট্রদূত আরো উল্লেখ করেন, বাংলাদেশের এই অর্জনকে ঘটা করে বরণের জন্যে ২২ মার্চ থেকে বাংলাদেশে উৎসবের সাথে সঙ্গতি রেখে এই মিশনের পক্ষ থেকেও বড় ধরনের একটি সমাবেশ হবে। সেখানে সর্বস্তরের লোকজনকে আমন্ত্রণ জানানোর পাশাপাশি জাতিসংঘের কর্মকর্তারাও আসবেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here