নিউইয়র্কের স্কুলে হালাল খাবার না বললেন স্কুল চ্যান্সেলর কারানজা

বক্তব্য রাখছে (মাঝে) নিউইয়র্ক স্কুল চ্যান্সেলর রিচার্ড এ, কারানজা -ছবি: বর্ণমালা নিউজ

বর্ণমালা নিউজ: নিউইয়র্ক স্কুল চ্যান্সেলর রিচার্ড এ, কারানজা স্পষ্টভাবেই বলেছেন নিউইয়র্কের পাবলিক স্কুলে মুসলিম শিক্ষার্থীদের জন্য হালাল খাদ্য সরবরাহের কোন পরিকল্পনা নেই তার । ১০ মে বৃহস্পতিবার এক রাউন্ড টেবিল বৈঠকে এক প্রশ্নের উত্তরে চ্যান্সেলর রিচার্ড এ, কারানজা বলেন, সিটির স্কুলের অনেক বিষয়ই ফেডারেল সরকারের নীতির সাথে সামঞ্জস্য রেখে পরিচালনা করতে হয়। আর তাই মুসলমান শিক্ষার্থীদের জন্য যেমন হালাল খাদ্য তেমনি ইহুদী শিক্ষার্থীদের জন্য কোশার খাবার সরবরাহ করা সম্ভব না।

গত ফেব্রুয়ারীতে ফ্লোরিডার স্কুলে বন্দুকের গুলিতে ১৭ ছাত্র নিহত হবার ঘটনার প্রেক্ষিতে নিউইয়র্কে স্কুলগুলো বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণের প্রয়োজনীয়তা রয়েছে কিনা জানতে চাইলে চ্যান্সেলর রিচার্ড এ, কারানজা বলেন, আমরা আমাদের স্কুলগুলোকে কারাগারে পরিণত করতে চাই না। আর আমাদের রয়েছে সেরা নিরাপত্তা প্রদানকারী ‘নিউইয়য়ক পুলিশ’। স্কুলে ম্যাটাল ডিটেক্টর বসানো এবং অন্যান্য নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা গ্রহণের বিষয়ে চ্যানেস্লর বলেন, এমন পদ্ধতি প্রবর্তনের কোন পরিকল্পনা নেই। আর করলে ক্সুলগুলো কারাগারে পরিণত হবে। এতে সমস্যাও সমাধান হবে বলে মনে হয় না। কারন সুরক্ষিত কারাগারেও ঘটছে অনেক ঘটনা। এমন ঘটনা যাতে না ঘটে সেজন্য সচেতনতা বৃদ্ধির উপর জোর দেয়া যেতে পারে এবং সোস্যাল মিডিয়াকে কাজে লাগিয়ে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে সহযোগিতা নেয়া যেতে পারে।

কিউনি গ্রাজ্যুয়েট স্কুল অব জার্নালিজমের ‘সেন্টার ফর কমিউনিটি এন্ড এথনিক মিডিয়া’ আয়োজিত এই রাউন্ড টেবিল বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয় ১০ মে বৃহস্পতিবার ম্যানহাটানের চেম্বার স্ট্রীটের কোর্ট হাউসে। বৈঠকে চ্যান্সেলর রিচার্ড এ, কারানজা তার কর্মসূচী ও ধ্যান ধারণা বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠীর মিডিয়া কর্মীদের সামনে তুলে ধরেন।

অনেক শিক্ষার্থী স্কুলের খাবার না খেয়ে ক্ষুধার্ত অবস্থায় বাড়ী ফিরে যায়- এমন প্রশ্নের উত্তরে চ্যান্সেলর রিচার্ড এ, কারানজা বলেন, আমরা বিষয়টি নিয়ে কাজ করছি। এজন্য ডাইনিং প্লেসের পরিবেশের উন্নতি করা হচ্ছে এবং তাতে ফলও পাওয়া যাচ্ছে।

চ্যান্সেলর রিচার্ড এ, কারানজা জানান নিউইয়র্ক সিটির অধীনে রয়েছে ১৮০০ স্কুল যাতে ১২ লক্ষ শিক্ষার্থী শিক্ষা নিচ্ছে। স্কুল পরিচালনার জন্য বাজেট ১২৫ মিলিয়ন ডলার। প্রাপ্ত বাজেটকে যথেষ্ট নয় বলে মনে করেন কারানজা। তিনি বলেন, বাজেট বৃদ্ধির জন্য আলবানীর আইন প্রণেতাদের কাছে দাবী তুলে ধরতে মিডিয়াগুলো ভূমিকা রাখতে পারে।

গোল টেবিল বৈঠকে চ্যান্সেলর রিচার্ড এ, কারানজার সাথে ছিলেন সিনিয়র ডেপুটি চ্যান্সেলর ড. ডোরিথা গিবসন ও ডেপুটি চ্যান্সেলর এলিজাবেথ রোজ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here