ইমাম-বাবরের প্রশংসায় পঞ্চমুখ পাকিস্তান অধিনায়ক

0
23

স্পোর্টস ডেস্ক: অভিষেক টেস্ট খেলতে নামা আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে জয় এনে দেওয়া দুই ব্যাটসম্যান ইমাম উল হক ও বাবর আজমের প্রশংসায় পঞ্চমুখ হয়েছেন পাকিস্তান অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ। জয়ের জন্য আয়ারল্যান্ডের ছুড়ে দেওয়া ১৬০ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ১৪ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে যায় পাকিস্তান। সেখান থেকে দলকে বিপদমুক্ত করে পাকিস্তানকে দারুণ এক জয়ের স্বাদ দেন দুই তরুণ ব্যাটসম্যান ইমাম ও বাবর।

ম্যাচ শেষে এ দুজনের প্রশংসা করে পাকিস্তান অধিনায়ক বলেন, ‘১৪ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে অবশ্যই চিন্তায় পড়ে গিয়েছিলাম। তবে সত্যিই এটা খুব ভাল বিষয় যে, দুই তরুণ খেলোয়াড় ইমাম ও বাবর আমাদের দলে আছে। খেলার ধরণ দিয়ে তারা নিজেদের জাত চিনিয়েছে, আত্মবিশ্বাসের প্রমাণ দিয়েছে। আমি মনে তাদের খেলার ধরনে দল আত্মবিশ্বাস পেয়েছে এবং পরবর্তী ম্যাচেও একইভাবে দলকে সাহায্য করবে।’

ইংল্যান্ড সিরিজের আগে অভিষিক্ত হওয়া আয়ারল্যান্ডের প্রতিপক্ষ হয় পাকিস্তান। প্রথম ইনিংসে ব্যাট-বলের পারফরমেন্সে উজ্জ্বল ছিল সফরকারীরা। কিন্তু দ্বিতীয় ইনিংসে ঘুড়ে দাঁড়ায় আয়ারল্যান্ড। ফলে চাপে পড়ে গিয়েছিল পাকিস্তান। আয়ারল্যান্ডের মতো টেস্ট অভিষেক ছিল ইমামেরও। নিজের অভিষেক টেস্টে অপরাজিত ৭৪ রান করে নিজের জাত বুঝিয়েছেন পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক ও প্রধান নির্বাচক ইনজামাম-উল-হকের ভাগ্নে ইমাম। তার সাথে বাবরের ৫৯ রান পাকিস্তানকে স্মরণীয় জয়ের স্বাদ দেয়।

দুটি প্রস্তুতি ম্যাচেও হাফ-সেঞ্চুরি করেছিলেন ইমাম। ৫৯ রানের ইনিংস খেলার পথে ৯ রানে জীবন পেয়েছিলেন বাবর। চতুর্থ উইকেটে ১২৬ রান যোগ করেন ইমাম ও বাবর। তাই ৫ উইকেটে ম্যাচ জিতে নেয় পাকিস্তান। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ২ ম্যাচের টেস্ট সিরিজের আগে আয়ারল্যান্ডের পেস বোলারদের বিপক্ষে ইমামের গতিশীল ব্যাটিং কাজে দেবে। কারণ, ডাবলিনের মত প্রায়ই একই কন্ডিশন ইংল্যান্ডেও। পাশাপাশি আবারো প্রমাণ হলো, রান চেজ করতে গিয়ে সমস্যায় পড়ে পাকিস্তান।

তারপরও শেষ পর্যন্ত জয়ের কারণে স্বস্তির নিঃশ্বাস সরফরাজের কন্ঠে, ‘আপনি জানেন আগে এমনটি ঘটেনি। সর্বশেষ টেস্টে ১৩৬ রানের টার্গেটে ১২০ রানেই গুটিয়ে যাই আমরা। হ্যাঁ, আমরা চিন্তা পড়ে গিয়েছিলাম, যখন আমরা ফলঅন করতে বলেছিলাম। কারণ চতুর্থ ইনিংসে ব্যাট করা সবসময়ই কঠিন।’

সাবেক দুই অধিনায়ক অভিজ্ঞ মিসবাহ-উল হক ও ইউনুস খানের বদলি হিসেবে কাউকে পেতে পাকিস্তানকে সমস্যা পড়তে হবে। কিন্তু ইমাম, যার দলে অন্তুর্ভুক্তির প্রশ্নবিদ্ধ ছিল। কারণ ইনজামামের ভাগ্নে হিসেবে অনভিজ্ঞই ছিলেন তিনি। এছাড়া পাকিস্তানের হয়ে অভিষেক ম্যাচ খেলতে নামা ফাহিম আশরাফও নিজের সেরাটা দিয়েছেন। প্রথম ইনিংসে তার ৮৩ রানের সুবাদেই দলীয় স্কোর ৩০০ রানের বেশি পায় পাকিস্তান।

নির্ভার সরফরাজ বলেন, ‘আমরা খুবই আত্মবিশ্বাসী। আমরা খুবই শক্তিশালী দল। আমাদের দলে দুজন খেলোয়াড়ের অভিষেক ঘটেছে। কিন্তু যেকোন লক্ষ্যমাত্রাই আসুক না কেন আমরা খুবই আত্মবিশ্বাসী ছিলাম, আমরা সেটি চেজ করতে পারবো। ১৪ রানে ৩ উইকেট পতনে আমরা কিছুটা উদ্বিগ্ন ছিলাম। কিন্তু ইমাম ও বাবর যেভাবে একসাথে খেলেছে, এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ যে দুজন তরুণ খেলোয়াড় ব্যাটিং করেছে। আমি মনে করি, এটি খুবই ভালো পঞ্চম দিনে দল হিসেবে পাকিস্তান চেজ করেছে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here