নিউইয়র্কে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এই প্রথম ঈদের ছুটি

0
69

আর্ন্তজাতিক ডেস্ক: নিউইয়র্কের প্রতিটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এই প্রথম মুসলিম নাগরিকদের জন্য ঈদের ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। এমনটাই জানিয়েছেন সেখানকার মেয়র।

একই সঙ্গে তিনি জানিয়েছেন ইদ-উল-ফিতর ও ইদ-উল-আজহা দিন দুটিতে মুসলিম ছাত্র-ছাত্রীদের অসুবিধার মধ্যে পড়তে হয়। তারা বুঝতে পারে না ‘স্কুল না ধর্ম’ কোনটিকে গুরুত্ব দেবে। তবে আর কোনও সমস্যা নেই। দিন দুটিতে এবার থেকে সরকারি ছুটি থাকবে।

আর এই ঘোষণার পরই শহরের মুসলিম নাগরিকদের মধ্যে আনন্দের রেশ ছড়িয়ে পড়েছে। বিষয়টিকে তাঁরা রাজনৈতিক বিজয় হিসেবে দেখছেন।

জানা গিয়েছে, চলতি বছর থেকেই দুই ঈদের ছুটি কার্যকর হবে। স্কুলের ক্যালেন্ডারেও দিন দুটি ছুটি হিসেবে উল্লিখিত থাকবে। এই ঘোষণার ফলে এখন থেকে নিউইয়র্কের পাবলিক স্কুলগুলিতে দুই ঈদে সাধারণ ছুটি থাকবে।

নিউইয়র্কে পাবলিক স্কুলগুলিতে আগে থেকে ইহুদি ও খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীদের উৎসবে ছুটি ছিল। নিউইয়র্কে মুসলিম প্রবাসীর সংখ্যা দিন দিন বাড়ায় ঈদে স্কুল ছুটি রাখার দাবি জোরালো হয়ে ওঠে।

নিউইয়র্ক নগরের পাবলিক স্কুলে ১০ লাখেরও বেশি শিক্ষার্থী রয়েছে। ২০০৯ সালে কলাম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণা থেকে জানা যায়, নিউইয়র্কের পাবলিক স্কুলের ১০ শতাংশ শিক্ষার্থী মুসলিম ধর্মাবলম্বী। শহরের পাঁচটি ব্যুরোতে বসবাসরত মোট ৮০ লাখ মানুষের মধ্যে ১০ লাখ মুসলিম।

নিউইয়র্কের স্কুল চ্যান্সেলর ক্যারম্যান ফারিনা তাঁর তাৎক্ষণিক বক্তব্যে জানিয়েছেন, দুই ঈদে ছুটি ঘোষণার ফলে শিক্ষার্থীরা ধর্মীয় সহনশীলতা, ভিন্ন ধর্ম ও সংস্কৃতি সম্পর্কে জানার ও শেখার অবকাশ পাবে।

আরব আমেরিকান অ্যাসোসিয়েশনের পরিচালক লিন্ডা সারসোর তাঁর প্রতিক্রিয়ায় বলেছেন, এত দিন ধর্মীয় উৎসব পালন এবং শিক্ষাগ্রহণের জন্য স্কুলে যাওয়ার টানাপোড়েন থাকত ছেলেমেয়েদের।
তিনি বলেন, ঈদের দিনগুলিতে ছুটি ঘোষণা আমেরিকার মুসলিমদের জন্য ঐতিহাসিক।

নিউইয়র্ক স্কুল বোর্ডে কর্মরত প্রবাসী শাহানা বেগম তাঁর প্রতিক্রিয়ায় বলেন, ‘দিনটি আমাদের জন্য খুবই আনন্দের’। দুই দশকের বেশি সময় নিউইয়র্কে থাকলেও ঈদের দিনগুলিতে স্কুল খোলা থাকার বিড়ম্বনায় থাকতে হতো। দেরিতে হলেও এই বিড়ম্বনার অবসান ঘটেছে বলে তিনি মনে করেন।

কলেজ শিক্ষার্থী সাকিব চৌধুরী বলেন, ‘নিউইয়র্কের পাবলিক স্কুলে পড়ার সময় দেখেছি অন্য ধর্মের শিক্ষার্থীরা তাদের উৎসবে ছুটি পাচ্ছে। আমাদের মনটা খারাপ হয়ে যেত।’ দেরিতে হলেও মেয়র ডি ব্লজির ঘোষণার মধ্য দিয়ে নিউইয়র্কে মুসলমানদের বিজয় ঘটেছে বলে তিনি আনন্দ প্রকাশ করেন।

নিউইয়র্কে পাবলিক স্কুলে ঈদের ছুটি ঘোষণা করা হলেও ব্যক্তিমালিকানাধীন স্কুলগুলি তাদের নিজস্ব নিয়মে চলে। কোনও কোনও ব্যক্তিমালিকানাধীন স্কুল শহর কর্তৃপ‌ক্ষের সিদ্ধান্ত অনুসরণ করে থাকে। যদিও বেশির ভাগ মুসলিম প্রবাসী ছাত্র-ছাত্রীরা নিউইয়র্কের পাবলিক স্কুলের শিক্ষার্থী।

নিউইয়র্কের আগে নিউজার্সি, ম্যাসাচুসেটস, ভারমন্ট সহ মুসলিম-অধ্যুষিত নগরগুলিতে ঈদ উপল‌ক্ষে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি চালু করা হয়। সেই তালিকায় নিউ ইয়র্কও যুক্ত হল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here