রবাসী নারী শ্রমিকের ঠোঁটে চুমু, সমালোচনার মুখে দুতার্তে

0
12

আর্ন্তজাতিক ডেস্ক: দক্ষিণ কোরিয়ায় এক লাইভ অনুষ্ঠানে প্রবাসী এক ফিলিপিনো নারী শ্রমিকের ঠোঁটে চুমু দিয়ে সমালোচনার মুখে পড়েছেন ফিলিপিন্সের প্রেসিডেন্ট রডরিগো দুতার্তে।

এক দল শ্রোতার সামনে বক্তব্য রাখার সময় ওই নারীকে মঞ্চে ডেকে নেন দুতার্তে এবং তাকে চুমু দেওয়ার জন্য প্রভাবিত করেন।

ওই দৃশ্যে অনুষ্ঠানে উপস্থিত লোকজন উল্লাস প্রকাশ করে, যাদের অধিকাংশই দক্ষিণ কোরিয়ায় কর্মরত ফিলিপিনো শ্রমিক।

কিন্তু এই ঘটনাকে ‘একজন নারীবিদ্বেষী প্রেসিডেন্টের বিরক্তিকর নাটক’ বলে বর্ণনা করেছে ফিলিপিন্সের অধিকার আন্দোলনকারী গোষ্ঠী গ্যাবরিয়েলা।

সিউলে প্রবাসী ফিলিপিনো শ্রমিকদের (ওএফডব্লিউ) এক অনুষ্ঠানে বিতর্কিত এই ঘটনাটি ঘটেছে।

একটি বইয়ের ফ্রি কপি নেওয়ার জন্য দুই ফিলিপিনো নারীকে মঞ্চে আমন্ত্রণ জানান দুতার্তে, ওই দুই নারী মঞ্চে দুতার্তের পাশে দাঁড়াতে পেরে অত্যন্ত আনন্দিত ছিল।

এদের মধ্যে প্রথমজনকে জড়িয়ে ধরে তার গালে চুমু দেন দুতার্তে, এরপর দ্বিতীয় নারীকে তার ঠোটে চুমু দেওয়ার জন্য ইঙ্গিত করেন।

প্রেসিডেন্টের এমন ইশারায় ওই তরুণী নার্ভাস ভঙ্গিতে হাসতে থাকেন এবং লজ্জাবনতভাবে কিছুটা আগুপিছু করতে থাকেন, এ সময় প্রেসিডেন্ট তাকে আবারও ইঙ্গিত করেন এবং শেষে কিছুটা সামনে ঝুকে ওই নারীর ঠোঁটে চুমু দেন।

যখন ওই তরুণী হাসছিলেন ও উপস্থিত লোকজন উল্লাস প্রকাশ করছিল তখন ইন্টারনেটে অনেক সমালোচনামূলক মন্তব্য আসছিল।

ফিলিপিন্স থেকে শারমানি কুইন্তো নামের একজন টুইটারে বলেন, ‘ওএফডব্লিউ থেকে যে চুমুটি ‘চাইলেন’ দুতার্তে? তা হয়রানির নমুনা। মূলত তিনি তার ক্ষমতা/কর্তৃত্বের প্রভাব খাটিয়ে দরিদ্র ওই মেয়েটির কাছ থেকে সম্মতি আদায় করে নিলেন।’

কাইলি ইউনাইস নামের আরেকজনের টুইট, ‘বিদেশে প্রকাশ্য অনুষ্ঠানে একজন ওএফডব্লিউকে চুম্বন করা অত্যন্ত অনৈতিক; যতক্ষণ তার ব্যক্তিগত কার্যসিদ্ধি হয় ততক্ষণ নৈতিক ও অনৈতিকার মধ্যে, সৎ ও অসতের মধ্যে ব্যবধান দুতার্তের কাছে অস্পষ্ট হয়ে পড়ে। গুডলাক, পিএইচ।’

এর আগেও নারীদের সঙ্গে অসঙ্গত আচরণের কারণে অভিযোগের মুখে পড়েছিলেন দুতার্তে।

সূত্র: বিবিসি

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here