ইউরোপজুড়ে অভিবাসন কেন্দ্র গড়ে তোলার সিদ্ধান্ত

0
18

আর্ন্তজাতিক ডেস্ক: বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে আয়োজিত ইউরোপীয় ইউনিয়নের সম্মেলনে অভিবাসন বিষয়ে ঐক্যমতে পৌঁছাতে পেরেছেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের নেতারা। বিভিন্ন দেশে অভিবাসন কেন্দ্র গড়ে তোলার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এ ছাড়া শরণার্থী প্রবেশ নিয়ন্ত্রণে আন্তর্জাতিক সীমান্তে নিরাপত্তা জোরদারসহ তুরস্কে আশ্রয় নেয়া শরণার্থীদের জন্য আরও বেশি আর্থিক সহায়তার সিদ্ধান্তও নেন ইইউ নেতারা।

এদিকে, এই বৈঠকের মধ্য দিয়ে ইউরোপে ঐক্য ফিরে এসেছে বলে মন্তব্য করেছেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ।

অভিবাসন সমস্যা নিয়ে গোটা ইউরোপজুড়ে চলছে চরম অস্থিরতা, বৃহস্পতিবার এর সমাধান খুঁজতে বৈঠকে বসে ইইউ। বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে ইইউ-এর ২৮ সদস্য রাষ্ট্রের নেতাদের মধ্যে বৈঠকটি চলে টানা ১০ ঘণ্টা। নানা আলোচনা-সমালোচনা, তর্ক-বিতর্ক, মতানৈক্যে কেটেছে অধিকাংশ সময়।

কিন্তু অবশেষে অভিবাসন নিয়ে ঐক্যমতে পৌঁছাতে পারেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের ২৮ দেশের নেতা। এসময়, বিভিন্ন দেশে অভিবাসন কেন্দ্র গড়ে তোলার সিদ্ধান্ত নেন এই নেতারা। শুক্রবার সকালে এক টুইট বার্তায় একথাই জানান ইউরোপীয় কাউন্সিলের সভাপতি ডোনাল্ড টাস্ক।

দীর্ঘ বৈঠক শেষে সবাই ঐক্যমতে পৌঁছাতে পারায় স্বস্তি প্রকাশ করেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ।

ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ বলেন, ‘নয় ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে বৈঠক হয়েছে। এরপরও আমরা যে একটি চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে পেরেছি, তা ফ্রান্সের জন্য খুবই ভালো খবর। রাষ্ট্র ধারণার বাইরে গিয়ে সব দেশকে একে অপরের প্রতি সহযোগিতা ও ঐক্য ধরে রেখে কাজ করতে হবে। তাহলেই অভিবাসন সমস্যার মতো একটি বৈশ্বিক সংকটের সমাধান মিলবে।’

এদিকে বিভিন্ন দেশে অভিবাসন কেন্দ্র গড়ে তোলার এই সিদ্ধান্তে আশাবাদী জার্মানি চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মার্কেল।

জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মার্কেল বলেন, ‘অভিবাসন সমস্যা নিয়ে এধরণের একটি সিদ্ধান্ত নেয়া খুবই জরুরি ছিল। ইইউ-এর জন্য এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া মোটেও সহজ বিষয় নয়। আশা করছি, এতে ভালো কোন ফলাফল আসবে।’

সম্মেলনে শরণার্থী প্রবেশ নিয়ন্ত্রণে আন্তর্জাতিক সীমান্তে নিরাপত্তা জোরদার এবং তুরস্ক, মরক্কো ও উত্তর আফ্রিকার দেশগুলোতে আশ্রয় নেয়া শরণার্থীদের জন্য আরও বেশি করে আর্থিক সহযোগিতা দেওয়ার বিষয়েও এক মত হয়েছেন ইইউ নেতারা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here