নিউইয়র্কে প্রবাসীদের মানববন্ধন

0
11

নিউইয়র্ক থেকে: ‘নিরাপদ সড়ক চাই’ আন্দোলনের সমর্থকরা নিউইয়র্কে বাংলাদেশ কন্স্যুলেটে হামলার আশঙ্কায় বিশেষ নিরাপত্তা বাহিনীর পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরাও সেখানে অবস্থান নেন। নিউইয়র্কের পুলিশ বাহিনীর সদস্যদের কঠোর অবস্থান অবলম্বন করায় কোন ধরনের অপ্রীতিকর পরিস্থিতি ছাড়াই পরস্পর বিরোধী দুটি কর্মসূচি সম্পন্ন হয়।

৬ আগস্ট বিকেলে হঠাৎ খবর ছড়িয়ে পড়ে যে জামায়াত-শিবির এবং বিএনপির ছত্র-ছায়ায় একদল তরুণ-তরুণী বাংলাদেশে চলমান ‘নিরাপদ সড়ক চাই’ আন্দোলনের সমর্থনে নিউইয়র্কে বাংলাদেশ কন্স্যুলেট অফিস ঘেরাওয়ের পর হামলা চালানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে। আওয়ামী পরিবারে এমন সংবাদ ছড়িয়ে পড়ার পরই যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শামসুদ্দিন আজাদ এবং ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদের নেতৃত্বে বেশ কিছু নেতা-কর্মী কন্স্যুলেটের সামনের রাস্তায় অবস্থান নেন।

এরও আগে বিশেষ নিরাপত্তা বাহিনী মোতায়েন করা হয় কন্স্যুলেটের নিরাপত্তার স্বার্থে। এমনি অবস্থায় অর্ধ শতাধিক তরুণ-তরুনী নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের সমর্থনে এবং সরকারের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর আহবান সম্বলিত পোস্টার, প্লেকার্ড, ব্যানারসহ পার্শ্ববর্তী সড়কের পাশে মানববন্ধন করে। এই তরুন-তরুণীরা পোস্টার-প্লেকার্ডে কোন সংগঠনের নাম উল্লেখ করেনি।
এসব পোস্টার-প্লেকার্ডে লেখা ছিল, ‘বাসের নীচে কে পড়ছে মানুষ নাকি দেশ-প্রশ্ন শুনে গণতন্ত্র পালায় নিরুদ্দেশ’, ‘স্টুডেন্ট লাইভস ম্যাটার’, ‘ডোন্ট স্লিপ-ওউক আপ;, ‘জাগো বাংলাদেশ,’ ‘সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যু আর নয়’, সেইভ দ্য চিল্ড্রেন-সেইফ বাংলাদেশ’, ‘উই ওয়ান্ট পীচ’,  ‘উই ওয়ান্ট সেইফ রোড’, ‘আমার ভাই কবরে-খুনী কেন বাহিরে’, ‘উই নীড জাস্টিস-নট পলিটিক্স’, ‘যদি তুমি ভয় পাও তবে তুমি শেষ-যদি তুমি রুখে দাঁড়াও তবে তুমি বাংলাদেশ’, ‘বায়ান্নর গন্ধ পাচ্ছি’ ইত্যাদি।

এই তরুণ-তরুণীদের কাছে জানতে চাইলে তারা সবাই একবাক্যে উল্লেখ করে যে, তারা সাধারণ ছাত্র-ছাত্রী। বাংলাদেশের কোন রাজনৈতিক দলের সাথে তাদের সম্পর্ক নেই এবং রাজনৈতিক মোটিভ থেকেও এই কর্মসূচির আয়োজন করেনি।

অপরদিকে, আওয়ামী লীগের নির্বাহী সদস্য খোরশেদ খন্দকার অভিযোগ করে বলেন, ‘যেখানে জামায়াত-শিবির আর বিএনপি-সেখানেই প্রতিরোধ রচনা করবো আমরা। দেশ বিরোধী কোন কর্মকাণ্ডকে আর সহ্য করা হবে না।’

আওয়ামী লীগের এ অবস্থান কর্মসূচিতে আরো ছিলেন, আবুল হাসিব মামুন, বাকির হোসেন হিরু, সোলায়মান আলী, সুবল দেবনাথ, ওয়ালি হোসেন, তৈয়বুর রহমান টনি প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here