টরন্টোর স্বাধীন কাপ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত

0
6

তিন দিনব্যাপী ‘স্বাধীন কাপ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট ২০১৮’ সালের প্রতিযোগিতা গত ৬ই আগস্ট টরন্টো পুলিশ ক্রিকেট ক্লাব গ্রাউন্ডে শেষ হয়েছে। এই টুর্নামেন্টে মোট ৮টি দল অংশ নেয়।

দুই গ্রুপে রাউন্ড রবিন লীগের খেলা শুরু হয় ৪ আগস্ট। দলগুলো হলো- সিলেট সুপার কিং, ডানফোর্থ ডাইনামাইট, লাল সবুজ, ওয়াকরিজ ক্রিকেট ক্লাব, টরন্টো টাইগার, ডেট্রয়েট অল স্টার্স, বিএসসি এবং স্বাধীন ক্রিকেট ক্লাব।

স্বাধীন কাপ ২০১৮ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট উদ্বোধন করেন স্বাধীন কমিউনিটি কানাডার পক্ষে পরিচালক ইত্তেজা আহমেদ, চিফ ডিসিপ্লিনারি কমিটির ডিরেক্টর ফয়েজ নূর এবং ডিসিপ্লিনারি কমিটির ডিরেক্টর শরিফুল ইসলাম।

ফয়েজ নূর এবং  শরিফুল ইসলাম খেলোয়াড়দের সুন্দর পরিচ্ছন্ন খেলা উপহার দেয়ার আহ্বান জানান এবং একে অন্যকে সন্মান প্রদর্শন করে কমিউনিটিকে এগিয়ে নিতে অনুরোধ করেন। স্বাধীন কমিউনিটি কানাডার পরিচালক ইত্তেজা আহমেদ আম্পয়ারস এবং কমিটির সিদ্ধান্তকে সন্মান জানানোসহ সকলকে সহযোগিতার আহ্বান জানান।

খেলার শুরুতে সম্প্রতি বাংলাদেশে ‘নিরাপদ সড়ক চাই’ আন্দোলনের কোমলমতি ছাত্র ছাত্রীদের সাথে একাত্মতা ঘোষণা করা হয়।

সেমিফাইনালে ওক্রিজ ক্রিকেট ক্লাব, বিএসসি, ডেট্রয়েট অল স্টার্স এবং স্বাধীন ক্রিকেট ক্লাব; এই ৪টি দল উন্নীত হয়। বৃষ্টিজনিত এবং সময় স্বল্পতার কারণে সেমিফাইনাল এবং ফাইনাল খেলা ৬ ওভারে সীমিত রাখা হয়।

প্রথম সেমিফাইনালে ওক্রিজ ক্রিকেট ক্লাব, ৯ উইকেটে স্বাধীন ক্রিকেট ক্লাবকে পরাজিত করে ফাইনালে ওঠে। দিনের অন্য সেমিফাইনালে ডেট্রয়েট অল স্টার্স, বিএসসিকে ৪৫ রানে পরাজিত করে।

ফাইনাল খেলায় টসে জিতে ডেট্রয়েট অল স্টার্স ব্যাটিং করতে নেমে ৬ ওভারে সংগ্রহ করে ৬৫ রান, জবাবে ওয়াকরিজ ক্রিকেট ক্লাব সব ওভার শেষে ৪২ রান তুলতে সক্ষম হয়। ডেট্রয়েট অল স্টার্স এর পক্ষে সর্বোচ্চ রান করেন ব্যাটসম্যান মারুফ। ওয়াকরিজ এর পক্ষে রুম্মন ৩ টি উইকেট নেন।  ব্যাট হাতে ওয়াকরিজ ক্রিকেট ক্লাব ৬ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে ৪২ রান করতে সক্ষম হয়। ফলে ডেট্রয়েট অল স্টার্স ২৩ রান এর বিশাল ব্যাবধানে চ্যাম্পিয়ন হয়। ওয়াকরিজ পক্ষে সর্বোচ্চ রান করেন ব্যাটসম্যান ফয়সাল মুন্না, তার সংগ্রহ ছিল ২০ রান। ডেট্রয়েট অল স্টার্স এর পক্ষে মারুফ, লিজান এবং তাহমিদ একটি করে উইকেট নেন। ম্যান অফ দ্যা ম্যাচ হন ডেট্রয়েট অল স্টার্স এর মারুফ।

প্রেজেন্টেশন পার্টিতে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলদেশ থিয়েটারের প্রেসিডেন্ট মোহাম্মেদ হাবীবুল্লাহ দুলাল, প্রধান অতিথি অ্যান্ড স্পন্সর সেঞ্চুরি ওয়ান রিয়েল্টর এনামুল হক, স্পন্সর ব্যারিস্টার ওয়াসিম আহমেদ, স্পন্সর ফিনান্সিয়াল অ্যাডভাইজার তানজীম সালেহা, ডিসিপ্লিনারি কমিটির ডিরেক্টর শরিফুল ইসলাম এবং সিলেট সদর অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি নাজমুল জায়গীরদার।

বক্তারা খেলোয়াড়দের সাফল্যের প্রশংসা করে বলেন; কমিউনিটিতে এইরকম আয়োজন সত্যি অভাবনীয় এবং প্রশংসার দাবি রাখে।

ডিসিপ্লিনারি কমিটির আরেক ডিরেক্টর এবং স্পনসর মিজান ফার্নিচারের স্বত্তাধিকারী মিজানুর রহমান এবং উইম্পি ডাইনার্স এর পরিচালক স্পনসর ফয়েজ নূর পারিবারিক কারণে ফাইনাল এ উপস্থিত থাকতে পারেননি।

আয়োজনে আরও যারা স্পনসর করেছেন তারা হলেন; মর্টগেজ ব্রোকার সোহেল আরিফ আব্বাস, সাফী লুটন ইসলাম, ঢাকা বিরিয়ানি হাউস।

আম্পয়ারস এর দায়িত্বে ছিলেন জুয়েল আহমেদ, ফয়সাল হাসান, মেহেদী হাসান সাগর, ফয়সাল মুন্না, শাকিল খান, মাহবুব কাউসার, লায়েকুল হক চৌধুরী, প্রিন্স, অনিক কর, এবং রাসেল। টুর্নামেন্টে এর শেষ দিনে কমেন্ট্রি করেন সামিউল করিম পল্লব।
চ্যাম্পিয়ন ট্রফি ডেট্রয়েট অল স্টার্স এর ক্যাপ্টেন সায়ীদ আহমেদ এর হাতে তুলে দেন বিশেষ অতিথি মোহাম্মেদ হাবীবুল্লাহ দুলাল, প্রধান অতিথি এবং স্পনসর সেঞ্চুরি ওয়ান রিয়েল্টর এনামুল হক এবং ডিসিপ্লিনারি কমিটির ডিরেক্টর নাজমুল জায়গীরদার এবং সকল প্লেয়ারদের মেডেল ও পরিয়ে দেন।

রানার্স আপ দল ওয়াকরিজ ক্রিকেট ক্লাব এর ক্যাপ্টেন গোলাম সুমনের হাতে ট্রফি এবং সকল প্লেয়ারদের মেডেল পরিয়ে দেন স্পনসর ব্যারিস্টার ওয়াসিম আহমেদ, ডিসিপ্লিনারি কমিটির ডিরেক্টর শরিফুল ইসলাম। পুরো টুর্নামেন্টে পরিচ্ছন্ন এবং খেলোয়াড় সুলভ আচরণের জন্য টরন্টো টাইগার টিমকে “স্বাধীন ফেয়ার প্লে টীম” হিসেবে পুরস্কৃত করা হয়।

প্লেয়ার অফ দা টূর্নামেন্ট অ্যাওয়ার্ড এ পুরুস্কৃত হন ফয়সাল হাসান (স্বাধীন ক্রিকেট ক্লাব) তার দুটি ম্যান অফ টি ম্যাচ, ৩ টি উইকেট, এবং স্কোর ১৩৩ রান তাড়া করার অউটস্টান্ডিং পারফরমেন্স এর জন্য। তার ব্যক্তিগত মোট রান সংগ্রহ ছিল ১২৯।

খেলায় বিভিন্ন ক্যাটেগরিতে ব্যক্তিগত পারফর্মন্সে ম্যান অফ ম্যাচ পুরস্কারপ্রাপ্তরা হলেন, তানিম – দুটি (বিএসসি), অপপলু(ওয়াকরিজ), ফাহাদ (ডানফোর্থ ডাইনামাইট), ফয়সাল মুন্না (ওয়াকরিজ), বিজয় (টরন্টো টাইগার), মিঠু (সিলেট সুপার কিং), ফয়সাল হাসান- দুটি (স্বাধীন), আসাদ কানন – দুটি (ডেট্রয়েট), রায়হান- দুটি (ডেট্রয়েট), মুদ্দাসীর (ওয়াকরিজ), মারুফ (ডেট্রয়েট)।

টুর্নামেন্ট-এর সার্বিক দায়িত্ব ও সহযোগিতায় ছিলেন ইত্তেজা আহমেদ, ফয়েজ নূর, মিজান রহমান, শরিফুল ইসলাম, জুয়েল আহমেদ, পল্লব, রাহাদ উদ্দিন, শাকিল খান, এবং গ্রাউন্ডস ম্যান পিটার। ব্যক্তিগতভাবে সাহায্য করেছেন রুপাশ, ছানা, সুমন প্রমুখ।

ফটোগ্রাফিতে ছিলেন রাহাদ উদ্দিন, জুয়েল আহমেদ এবং ইত্তেজা আহমেদ।

স্বাধীন কমিউনিটি কানাডার পক্ষ থেকে সকল পৃষ্টপোষক, খেলোয়াড়, ভলান্টিয়ার, আম্পয়ারস, অতিথি এবং টরন্টো পুলিশ ক্রিকেট ক্লাবকে আন্তরিক অভিনন্দন এবং ধন্যবাদ জানানো  হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here