সুন্নি চিন্তাবিদ সালমান ওদাহর মৃত্যুদণ্ড চায় সৌদি আরব

0
12

আর্ন্তজাতিক ডেস্ক: সৌদি আরবের শীর্ষস্থানীয় সুন্নি চিন্তাবিদ সালমান ওদাহর বিচার চলছে গোপন আদালতে। সম্প্রতি আদালতে সৌদি প্রসিকিউটর ওদাহর মৃত্যুদণ্ড চেয়েছেন। গত আগস্টে বিচারের মুখোমুখি করা হয় ওদাহকে। এজন্য গোপনেই পরিচালিত হচ্ছে তার বিচার কার্যক্রম।

সৌদি সরকার নিয়ন্ত্রীত মিডিয়া মঙ্গলবার জানিয়েছে, সন্ত্রাসী সংগঠনের সঙ্গে জড়িত এক ব্যক্তিকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছে। তবে এ সময় ওদাহর নাম প্রকাশ করা হয়নি। সেই ব্যক্তিই ওদাহ কি না, সে বিষয়ে অনুসন্ধান করে ঘটনার সত্যতা রয়েছে বলে মনে করছে মিডল ইস্ট আই।

প্রায় এক বছর ধরে আটক ছিলেন আল ওদাহ। বিতর্কিত বিভিন্ন সামাজিক ইস্যুতে প্রগতিশীল মতামত দিয়ে সারাবিশ্বে পরিচিতি পান ৬১ বছর বয়সী ওদাহ।

ওদাহকে প্রথমে কোন অপরাধে আটক করা হয়েছে তা জানানো হয়নি। এমনকি বিচার চলাকালেও তা জানা যায়নি। মঙ্গলবার জানা যায়, তার বিরুদ্ধে ৩৭টি অভিযোগ আনা হয়, যার একটি হলো সন্ত্রাসী সংগঠনকে নেতৃত্ব দেওয়া। এছাড়া শাসকদের বিরুদ্ধে জনগণকে উস্কে দেওয়ার অভিযোগও আনা হয় তার বিরুদ্ধে।

মোহাম্মদ বিন সালমান যুবরাজের দায়িত্ব নেওয়ার পর ২০১৭ সালের ১০ সেপ্টেম্বর আটক হন এই চিন্তাবিদ। ওই সময়ে আটক হয়েছিলেন অনেক নারীবাদী, মানবাধিকারকর্মী ও বেশ কয়েকজন ক্ষমতাশালী ব্যবসায়ী।

সালমান আল ওদাহ’র যুক্তরাজ্যে বসবাস করা ছেলে আবদুল্লাহ আল ওদাহ জানিয়েছেন তার বাবার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগের বিস্তারিত কোনো তথ্য দেয়নি।

অভিযোগ রয়েছে, গত বছরের জুনে কাতারকে নিয়ে সৃষ্ট উপসাগরীয় সমস্যায় কূটনৈতিক সমাধান চেয়ে টুইট করার অভিযোগে তাকে আটক করা হয়।

এর আগে সালমান আল-ওদাহকে জেদ্দায় নির্জন কারাবাসে চিকিৎসা ছাড়া  রাখা হয়েছিল বলে দাবি পরিবারের। এমনকি পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করতে দেওয়া হয়নি মাসের পর মাস। সূত্র : মিডল ইস্ট আই

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here