যেসব খাবারে রক্তস্বল্পতা দূর করে

0
15

স্বাস্থ্যসেবা ডেস্ক ॥
রক্তশূন্যতায় দূর করতে নিয়মিত খাবার তালিকায় কলিজা রাখা উচিত। কলিজায় প্রচুর পরিমাণে আয়রন ও ভিটামিন বি এর শাখাগুলো আছে। মধু আয়রনের একটি ভালো উৎস। আয়রন ছাড়াও মধুতে কপার ও ম্যাঙ্গানিজ আছে যা শরীরে প্রচুর পরিমাণে হিমোগ্লোবিন প্রস্তুত করতে সহায়তা করে। কচু শাক, কচুর লতি, কচু, পালং শাক, বিট, লেটুস, ব্রকোলি, ধনিয়া পাতা, পুদিনা পাতা ইত্যাদি নিয়মিত খেলে রক্তশূন্যতা থেকে মুক্তি মেলে। কলা, আঙ্গুর, কমলা, গাজর, বিট রক্তশূন্যতায় অত্যন্ত উপকারী।

অনেকেই বলে থাকেন যে শরীরে রক্ত কমে গেছে বা রক্ত নেই। কিন্তু প্রকৃত পক্ষে রক্তের হিমোগ্লোবিন কমে যাওয়ারকেই রক্তস্বল্পতা বা রক্তশূন্যতা বলা হয়ে থাকে। বাংলাদেশে অনেক মানুষ রক্তস্বল্পতা রোগে ভোগে। বিশেষ করে যারা পুষ্টিকর খাবার থেকে বঞ্চিত তাদের রক্তস্বল্পতার প্রবণতা বেশি হয়। রক্তস্বল্পতা হলে শরীর নিস্তেজ হয়ে আসে, কর্মক্ষমতা লোপ পায় এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়। অনেকেই রক্তশূন্যতা হলে না জেনে আয়রন ট্যাবলেট খেয়ে থাকেন। কিন্তু ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া আয়রন ট্যাবলেট খাওয়া উচিত নয়। শুধু মাত্র পুষ্টিকর কিছু খাবার খেয়েই রক্ত শূন্যতা থেকে রক্ষা পাওয়া সম্ভব। আসুন জেনে নেয়া যাক রক্তশূন্যতা দূর করে এমন ৫টি খাবারের নাম।
দুধ:
প্রতিদিন এক গ্লাস দুধ শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় ভিটামিন ও প্রোটিন যোগায়। দুধে খুব বেশি পরিমাণে আয়রন না থাকলেও এতে প্রায় সব রকমের ভিটামিন বি আছে। এছাড়াও দুধে আছে পটাশিয়াম ও ক্যালসিয়াম। এই খাদ্য উপাদান গুলো রক্তের হিমোগ্লোবিন বাড়িয়ে রক্ত শূন্যতা দূর করতে সহায়তা করে। তাই রক্ত শূন্যতা রোগীদের জন্য নিয়মিত অন্তত এক গ্লাস করে দুধ খাওয়া উপকারী।
কলিজা:
অনেকেই কলিজা খেতে পছন্দ করেন। আবার এমনও অনেকে আছে যারা একেবারেই কলিজা খেতে পারেন না। কিন্তু রক্তশূন্যতায় ভুগছেন যারা তাদের নিয়মিত খাবার তালিকায় কলিজা রাখা উচিত। কলিজায় প্রচুর পরিমাণে আয়রন ও ভিটামিন বি এর শাখাগুলো আছে। তাই রক্তশূন্যতার রোগীরা সম্ভব হলে প্রতিদিনের খাবার তালিকায় কলিজা রাখা উচিত।
মধু:
মধু আয়রনের একটি ভালো উৎস। আয়রন ছাড়াও মধুতে কপার ও ম্যাঙ্গানিজ আছে। এই উপকরন গুলো শরীরে গিয়ে প্রচুর পরিমাণে হিমোগ্লোবিন প্রস্তুত করতে সহায়তা করে। তাই রক্তশূন্যতা কমাতে মধু একটি শক্তিশালী হাতিয়ার।
শাক সবজি:
বিভিন্ন রকম সবজি যেমন কচু শাক, কচুর লতি, কচু, পালং শাক, বিট, লেটুস, ব্রকোলি, ধনিয়া পাতা এবং পুদিনা পাতা নিয়মিত বেশি করে খেলে রক্তশূন্যতা থেকে মুক্তি মেলা সম্ভব। এই শাক সবজিগুলোতে আয়রনের পাশাপাশি ভিটামিন বি-১২, ফলিক এসিড ও অন্যান্য শক্তিবর্ধক খাদ্য উপাদান আছে যেগুলো রক্তের হিমোগ্লোবিন বৃদ্ধি করতে সহায়তা করে। বিশেষ করে বিটের জুস রক্তশূন্যতায় অত্যন্ত উপকারী।
ফল:
প্রতিদিন আয়রন যুক্ত ফল যেমন আপেল, টমেটো ইত্যাদি খেয়ে রক্তশূন্যতা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। আপনি যদি ফল খেতে পছন্দ না করে থাকেন তাহলে আপেল কিংবা টমেটোর জুস করে খান। আরো যেসব ফল রক্তশূন্যতা দূর করে সেগুলো হলো কলা, আঙ্গুর, কমলা, গাজর ইত্যাদি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here