ধর্ষণ মামলা : ছেলেকে সমর্থন দিলেন রোনালদোর মা

0
14

স্পোর্টস ডেস্ক: প্রায় ১০ বছর আগের একটি ঘটনায় নতুন করে ফেঁসে গেছেন পর্তুগিজ সুপারস্টার ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। ২০০৯ সালের জুনে লাস ভেগাসের একটি হোটেলে ক্যাথরিন মায়োরগা নামের এক নারীর সঙ্গে রাত কাটান সিআর সেভেন। কিন্তু সেই তরুণী দাবি করেন তাকে ধর্ষণ করা হয়েছে। তখন বিপুল অংকের টাকায় আপোষ করলেও এতদিন পর গত বছরের অক্টোবরে সেই ঘটনায় আবারও ধর্ষণের মামলা দায়ের করেন সেই নারী। যে কারণে এখন ডিএনএ টেস্টের মুখোমুখি জুভেন্তাস তারকা।

এমন বিপর্যয়ের মুখে রোনালদোর পাশে দাঁড়িয়েছেন তার মা মারিয়া সান্তোস। স্প্যানিশ ফুটবল পত্রিকা ‘মার্কা’র মতে, ছেলে এমন কাণ্ড করতেই পারে না জানিয়ে মারিয়া বলেছেন, ‘আমার ছেলের প্রতি আমার পূর্ণ আস্থা আছে। সে কী করতে পারে সেটা জানি। সে (মায়োরগা) তো ওখানে (হোটেল রুম) তাস খেলার জন্য যায়নি; যেটা করার জন্য গিয়েছিল সেটাই করেছে।’

উল্লেখ্য, ক্যাথরিন মায়োরগা নামের ওই নারী গত অক্টোবরে জার্মান পত্রিকা ডার স্পিগেলকে বলেন, রোনালদো তাকে ১০ বছর আগে ওই হোটেলে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেছিলেন। বিকৃত পায়ু সঙ্গম করতেও বাদ দেননি। এরপর তিনি মামলা করলেও রোনালদোর সঙ্গে ৩ লাখ ৭৫ হাজার ডলারের বিনিময়ে কখনও এই অভিযোগ প্রকাশ না করার ব্যাপারে রাজি হয়েছিলেন মায়োরগা। এক দশক পর এসে সেই আপোস ভেঙে ঘটনার বিচার চান তিনি। এরপর ঘটনার তদন্তে নামে লাস ভেগাস পুলিশ।

এরপর রোনালদো অবশ্য বিবৃতিতে বলেন, সেদিন যা হয়েছিল সব দুজনের সম্মতিতে। তার ক্যারিয়ার ধ্বংস করার জন্য এবং টাকা হাতানোর জন্যই সেই তরুণী নতুন করে এসব কথা সামনে এনেছে। কিছুদিন আগে তদন্তের অংশ হিসেবে জুভেন্তাস ফরোয়ার্ডের ডিএনএ নমুনা চেয়ে পরোয়ানা জারি করেছে লাস ভেগাসের পুলিশ। এরপর রোনালদোর আইনজীবী পিটার এস ক্রিস্টিয়েনসেন বলেছেন, ‘ক্রিশ্চিয়ানো সবসময়ই যেটা বলে এসেছেন আজও সেটাই বলছেন। ২০০৯ সালের লাগ ভেগাসের হোটেলে সবকিছু পারস্পরিক সমঝোতায় হয়েছিল। তাই সেখানে তার ডিএনএ পাওয়াটা বিস্ময়কর নয়।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here