বিশ্বকাপ এলেই কী যেন হয়ে যায় প্রোটিয়াদের!

0
9

স্পোর্টস ডেস্ক: যুগের পর যুগ ধরে ক্রিকেট বিশ্বে ‘চোকার্স’ উপাধি একমাত্র প্রোটিয়াদের নামের পাশেই যুক্ত হয়ে আছে। কারণ ঘর লেপে দুয়ারে কালি দেওয়ার মতো কর্ম তাদের চেয়ে ভালো কেউ পারে না। আরও একটি বিশ্বকাপ এসে; সুতরাং যথারীতি সমস্যা দেখা দিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকার শিবিরে। আসন্ন বিশ্বকাপের দল অনেকটাই নিশ্চিত করে ফেলেছেন দক্ষিণ আফ্রিকা কোচ ওটিস গিবসন। তবে ১৫ সদস্যের দল গঠনে জটিলতা সৃষ্টি করেছে ইনজুরি ও ফর্মহীনতা।

গত এক বছরে ৫০ ওভারে ফরম্যাটে কোনো সিরিজ না হারা দক্ষিণ আফ্রিকার আগামী ১৮ এপ্রিল বিশ্বকাপ দল ঘোষণা করার কথা রয়েছে। গত ১২ মাসে দলটি শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে হোম এন্ড অ্যাওয়ে, অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে এবং নিজ মাঠে পাকিস্তান ও জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ জিতেছে। আগামী ৩০ মে ওভালে স্বাগতিক ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে নিজেদের বিশ্বকাপ মিশন শুরু করবে দক্ষিণ আফ্রিকা।

অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসিস এর আগে সাফল্যের জন্য নিজেদের নীল নকশা হিসেবে ছয় বিশেষজ্ঞ ব্যাটসম্যান, সাত নম্বর পজিশনে একজন অলরাউন্ডার, তিন ফাস্ট বোলার এবং একজন স্পিনারের কথা উল্লেখ করেছিলেন। বোলিং লাইন আপে স্বাভাবিকভাবেই নিয়ন্ত্রিত লেগ স্পিনের জন্য ইমরান তাহির এবং পেস আক্রমণে কাগিসো রাবাদা, লুঙ্গি এনগিডি এবং অভিজ্ঞ হিসেবে ডেল স্টেইন অথবা নতুন মুখ হিসেবে এনরিখ নর্টির আসার কথা।

কিন্তু এনগিডি (সাইড স্ট্রেইন) এবং নর্টি (কাঁধে) ইনজুরির কারণে চলমান ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ(আইপিএল) মিস করছেন। এ ছাড়া সাম্প্রতিক সময়ে দু’জনেরই ভেঙ্গে পড়ার ইতিহাস রয়েছে। কোচ গিবসন সাংবাদিকদের বলেন, ‘কিছু সময়ের জন্য ১৫ সদস্যের বিষয়ে মনস্থির করেছি। কিন্তু এখন আমাদের বিস্তারিত আলোচনায় বসতে হবে। আইপিএল মিস করা খেলোয়াড়দের কাছে জানতে চেয়েছি প্রোটিয়া সেট আপের বিষয়টি জানতে চেয়েছি।’

তিনি আরো জানান, ‘আগামী ১২ মে আমাদের ক্যাম্প শুরু হবে এবং সেখানে কোন প্রকার ইনজুরি না থাকার বিষয়টি আমরা নিশ্চিত হতে চাই। আমরা চাই না বিশ্বকাপ দলে কারো কোন প্রকার ইনজুরি থাকুক।’

গত এক দশক যাবত দলের টপ অর্ডারের ভরসার প্রতিক ওপেনার হাশিম আমলা। তবে গত তিন ফরম্যাটেই তার ফর্ম নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। ওয়ানডে ক্রিকেটে নিজের শেষ ১৬ ইনিংসে আমলার সেঞ্চুরি রয়েছে মাত্র একটি। ২০১৮ সালের শুরু থেকে তার ব্যাটিং গড় ৩৫ .২৬। তবে ইংল্যান্ড সব সময়ই তার প্রিয় জায়গা। যেখানে তার ব্যাটিং গড় ৬৩ .৪৪। ঘরোয়া ক্রিকেটে দারুন নৈপুণ্য দেখানো রিজা হেন্ড্রিক্স এবং আইডেন মার্করামের সঙ্গে ওপেনার হিসেবে লড়াই করতে হবে আমলাকে।

প্রশ্ন রয়েছে তিন নম্বর পজিশনে ব্যাটিং নিয়েও। অভিজ্ঞতা খুব বেশি না থাকলেও ফরম্যার কারণে এগিয়ে আছেন রাসি ভ্যান ডার ডুসেন। তিন মাস আগে ডুসেনের ওয়ানডে অভিষেক ঘঠেছে। তবে গুরুত্বপূর্ণ একটি পজিশনে তাকে দায়িত্ব পালন করতে হতে পারে।
স্পিনার হিসেবে দ্বিতীয় বিকল্প ও একজন ফ্রন্টলাইন ব্যাটসম্যান হিসেবে স্বীকৃত জেপি ডুমিনিও কাঁধে সমস্যা রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here